ছুটির মরসুমে গা ভাসাতে কাছে পিঠে ট্রিপ মানেই পুরী। বাঙালির কাছে পুরী ভ্রমণ এক কথায় জলভাত। পুরীতে গিয়ে কেবল জগন্নাথ দর্শন নয়, পাশাপাশি ঘুরে নেওয়া এসেপাশের বিভিন্ন এলাকা। যার মধ্যে অন্যতম চিল্কা হ্রদ। আবার অনেকেই পরিযায়ী পাখির ভক্ত, কিংবা ফোটোগ্রাফার হয়ে থাকেন। তাঁরাও মাইগ্রেশনের সময় চিল্কাতে হাজির হন। আর চিল্কা হ্রদের অন্যতম আকর্ষণই হল ডলফিন।

আরও পড়ুনঃ অরণ্য, মেঘ, কুয়াশা গাছের গায়ে-পাতায় মিড় লাগিয়ে যুগলবন্দী রচনা করে চটকপুরে

তবে অনেকেরই ভাগ্যে জুটত না ডলফিন দর্শন। একদিকে তাকিয়ে বসে থাকার ফল, অন্যদিক থেকে একটা ডলফিন বেড়িয়ে যাওয়া। ডলফিনের সংখ্যা কম হওয়ার ফলে দেখার সম্ভাবনা গিয়েছিল অনেকটাই কমে। ফলে অনেকেই চিল্কা থেকে মুখ ফেরাচ্ছিলেন। এবার তাই পর্যটকদের জন্য রইল সুখবর। চিল্কার ১১৬৫ বর্গকিলোমিটার এলাকাকে সংরক্ষিত করা হয়েছে। এই অঞ্চলের মধ্যেই বেড়েছে ডলফিনের সংখ্যা। 

সম্প্রতি চিল্কা হ্রদে ডলফিনের সংখ্যা ছাড়ালো ১৫০। ওড়িশা বনবিভাগ থেকে জানানো হয়েছে যে এই সংখ্যা গতবছরের তুলনাতে বেশি। ২০১৮ সালে এর পরিসংখ্যান ছিল আরও বেশি। তবে গত বছর তা কমে যাওয়ায় রীতিমত চিন্তার ভাঁজ পড়েছিল পর্যটন দফতরের কপালে। এবার সেই সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার ফলে বেশকিছু নতুন সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। যার মধ্যে অন্যতম, কমিয়ে দেওয়া হবে পর্যটকদের যাতায়াত। কমাতে হবে নৌকার আশা যাওয়া।