করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কে গোটা মার্কিন মুলুক। পরিস্থিতি সামাল দিতে জরুরী অবস্থা ঘোষণা করতে হয়েছে  মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে। প্রতিদিনিই কোভিড-১৯ ভাইরাস নিয়ে সংবাদমাধ্যমের সামনে ব্রিফিং দিচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। এর মধ্যেই একটি  চাঞ্চল্যকর দাবি করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তাঁর কাছে নাকি ক্ষমা চাইতে হবে  গুগলের সিইও সুন্দর পিচাইকে। তবে পিচাই কী কারণে ক্ষমা প্রার্থনা করবেন সেই বিষয়টি  প্রথমে স্পষ্ট করেননি ট্রাম্প। 

আরও পড়ুন: ভারতে কামাল দেখাল সোয়াইন ফ্লু-ম্যালেরিয়া- এইচআইভির মেডিসিন, করোনাকে জিতে ফিরলেন ৩

করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে গুগলের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে মার্কিন প্রশাসন। এর ফলে ঘরে বসেই একটি পরীক্ষার মাধ্যমে মানুষ বুঝতে পারবেন তাঁদের করোনা পরীক্ষার প্রয়োজন আছে কিনা, আর প্রয়োজন থাকলে কোথায় তা করানো যাবে। এই প্রকল্পে গুগলের সঙ্গে ১৭০০ ইঞ্জিনিয়ার কাজ করবেন বলে আগেই জানিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এদিন প্রেস কনফারেন্সে ট্রাম্প করোনাভাইরাস স্ক্রিনিং সাইট নিয়ে গুগল কমিউনিকেশন দলের প্রশংসা করেন।

আরও পড়ুন: ইউরোপে ইতালির পর ফ্রান্সেও করোনার ভয়াল থাবা, আতঙ্কে লকডাউন গোটা স্পেনে

ট্রাম্প বিবৃতিতে বলেন, " আমি গুগল এবং গুগল কমিউনিকেশনের সঙ্গে যুক্ত লোকেদের ধন্যবাদ জানা, কারণ শুক্রবার আমি যা বলেছিলাম তাঁরা সেই মতই কাজ করছেন।" ট্রাম্প আরও বলেন,  " গুগলের প্রধান একজন সজ্জন ব্যক্তি- তিনি নাকি বলেছেন- আমাদের ডাকা হয়েছিল- এবং ক্ষমা প্রার্থনা করা হয়েছে। আমি যানি না সংবাদমাধ্যম কোত্থেকে এই ভুয়ো খবর পায়,কিন্তু এই খবরটা কোথাও তারা পেয়েছে। যেমন আপনি জানেন, এই খবরটা গুগল থেকে এসেছে (ট্যুইটারে গুগল কমিউনিকেশনের প্রকাশিত বক্তব্য তুলে ধরেন তিনি)। তারা একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে (কাগজটি মাটিতে ফেলে দিয়ে)  এবং আপনারা নিজেরাই নির্ধারণ করতে পারবেন কীভাবে এটি বেরিয়েছে, এবং আমি নিশ্চিত আপনি ক্ষমা চাইবেন। তবে আপনি যদি সঠিকভাবে সংবাদটি দিতে পারেন তাহলে দারুণ হবে। এটা সত্যিই সুন্দর ঘটনা হবে। "

 

 

এদিকে  গুগলের সিইও সুন্দর পিচাই  ট্যুইটারে এদিন ফের একটি পোস্ট করেন। যেখানে তিনি বেশকিছু বিভ্রান্তি দূর করার চেষ্টা করেন। এবং কোভিড-১৯ ভাইরাস সম্পর্কে ব্যবহারকারীদের সঠিক তথ্য দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।