ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসাবে তিনি বেছে নিয়েছিলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা হ্যারিস-কে। শনিবার মার্কিন নির্বাচনে জো বাইডেনের জয়ের ফলে প্রথমবারের জন্য কোনও ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট হয়েছেন। এবার আরও এক ভারতীয়কে বাইডেন প্রশাসনের অত্যন্তু গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় দেখা যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। সোনা যাচ্ছে বাইডেন-হ্য়ারিস জুটির করোনা টাস্কফোর্সের নেতৃত্বে দিতে চলেছেন ভারতীয়-মার্কিন চিকিত্সক ডাক্তার বিবেক মূর্তি।

শনিবার জয় নিশ্চিত হতেই প্রেসিডেন্ট ইলেক্ট হিসাবে জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া প্রথম ভাষণেই জো বাইডেন বলেছেন, বিপর্যস্ত মার্কিন অর্থনীতিকে উদ্ধারের জন্য করোনাভাইরাস মহামারির মোকাবিলা করতে তিনি সবরকম চেষ্টা করবেন। এর জন্য তিনি প্রেসিডেন্ট হিসাবে শপথ নেওয়ার আগেই সোমবার একটি করোনাভাইরাস টাস্কফোর্স গঠন করবেন বলে জানিয়েছেন। করোনা মোকাবিলায় তাঁর এবং কমলা হ্যারিস পরিকল্পনা যাতে ২০২১ সালের ২০ জানুয়ারি তিনি দায়িত্ব নেওয়ার প্রথম দিন থেকেই কার্যকর করা যায়, তা নিশ্চিত করতে এই টাস্ক ফোর্স একটি অ্যাকশন ব্লুপ্রিন্ট তৈরি করবে। শীর্ষস্থানীয় বিজ্ঞানী ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা এই টাস্ক ফোর্সে থাকবেন বলে জানালেও বাইডেন নির্দিষ্ট কারোর নাম করেননি।

তবে সংবাদ সংস্থা পিটিআই এবং অন্যান্য বেশ কয়েকটি মার্কিন সংবাদমাধ্যমের দাবি এই টাস্ক ফোর্সের যৌথ-সভাপতি হতে চলেছেন প্রাক্তন খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন কমিশনার ডেভিড ক্যাসলার এবং ডাক্তার বিবেক মূর্তি। কয়েকদিন পর তেকেই তারা বৈঠক শুরু করে দিতে পারে।

ডাক্তার বিবেক মূর্তির জন্ম ব্রিটেনে হলেও তাঁরা আদতে কর্ণাটকের লোক। ২০১৪ সালে তত্কালীন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তাঁকে আমেরিকার ১৯তম সার্জন জেনারেল নিযুক্ত করেছিলেন। সেই সময় তাঁর বয়স ছিল মাত্র ৩৭। সর্বকনিষ্ঠ হিসাবে এই পদ পেয়েছিলেন তিনি। তাঁর আগে কোনও ভারতীয়-আমেরিকান এই পদে বসার সুযোগ পাননি। পরে ট্রাম্প প্রশাসন এসে তাঁকে সরিয়ে দিয়েছিল। তবে, বাইডেন প্রেসিডেন্টের দৌড়ে সামিল হতেই ফের আলোচনায় ফিরে এসেছিলেন তিনি। প্রচারের সময়টায় জনস্বাস্থ্য এবং করোনভাইরাস ইস্যুতে জো বাইডেনের শীর্ষ উপদেষ্টার ভূমিকা পালন করেছেন তিনি।

শুধু তাই নয়, ভারতীয় আমেরিকান জনগোষ্ঠীর মধ্যে বাইডেন-এর জনপ্রিয়তা বাড়াতেও বড় ভূমিকা নিয়েছেন তিনি। গত সেপ্টেম্বর মাসে ভারতীয়-আমেরিকানদের আয়োজিত একটি তহবিল সংগ্রহের অনুষ্ঠানে বাইডেনের উপস্তিতিতেই বিবেক মুর্তি তাঁর সম্পর্কে বলতে গিয়ে বলেছিলেন, বাইডেন এমন একজন ভালো মানুষ, যে তাঁকে বাবা-মায়ের সঙ্গে নৈশভোজ খাওয়ার আমন্ত্রণ জানাতে ইচ্ছে করে। এমনকী তাঁকরে স্বচ্ছন্দে 'মশলা ধোসা' পরিবেশন করা যায় বলেও শংসা দিয়েছিলেন। বাইডেন কে তিনি একজন অত্যন্ত 'খাঁটি' মানুষ বলেছিলেন। তাঁর মতে জো বাইডেন মনে যা ভাবেন, মুখেও তাই বলেন।

এই অবস্থায় অনেকেই মনে করছেন শুধু বাইডেনের করোনাভাইরাস টাস্ক ফোর্সের নেতৃত্বেই নয়, বাইডেন প্রশাসনে আরও বড় ভূমিকায় দেখা যেতে পারে ডাক্তার বিবেক মূর্তি কে। অনেকের অনুমান, বিবেক মূর্তি আমেরিকার পরবর্তী স্বাস্থ্য সচিব হতে চলেছেন।