দুই বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বারের জন্য বিক্রি হয়ে গেল বিখ্যাত মার্কিন ক্রীড়া পত্রিকা 'স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেড'। প্রতি ১১০ মিলিয়ন ডলারে এই পত্রিকার মালিকানা সত্ত্ব কিনেছে  'অথেনটিক ব্র্যান্ডস গ্রুপ'। তবে পত্রিকাটির প্রকাশনায় থেকেও তার ব্র্যান্ড মূল্যে ব্যবহার করাতেই তাদের বেশি নজর রয়েছে।

২০১৮ সালে 'টাইম ইনকর্পোরেশন' ক্রয় করেছিল 'মেরেডিথ কর্পোরেশন'। টাইম-এর অন্য়ান্য বিভিন্ন প্রকাশনা সঙ্গে সঙ্গে 'স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেড'-এর মালিকানাও তাদের হাতে আসে। তবে 'মেরেডিথ কর্পোরেশন'-এর প্রধান ফোকাস মহিলা পাঠকরা। 'টাইম ইনকর্পোরেশন'-এর যেসব পত্রিকা মহিলাদের জন্য নয়, সেগুলি একে একে তারা বিক্রি করে দিয়েছে। এবাহর সেই তালিকাতেই সংযুক্ত হল স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেড-এর নাম।

ক্রীড়া সাংবাদিকতার জগতে স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেডকে কিংবদন্তি বলা যেতে পারে। দশকের পর দশক ধরে একদিকে দিকপাল ক্রীড়া সাংবাদিকদের লেখায়, আরেকদিকে তাবড় চিত্র-সাংবাদিকদের তোলা অসাধারণ সব ছবিতে সম্বৃদ্ধ হয়েছে এই পত্রিকা। এর প্রচ্ছদ কাহিনিতে স্থান পাওয়াকে ক্রীড়া জগতের অত্যন্ত বড় প্রাপ্তি হিসেবে ধরা হয়।

তবে এখন মানুষের খবর সংগ্রহের অভ্যাসটা ক্রমেই পাল্টে যাচ্ছে। বিশেষ করে খেলার জগতের তাৎক্ষণিক খবরাখবরের জন্য মানুষ পত্রিকার থেকে বেশি বেছে নিচ্ছেন টেলিভিশন চ্যানেল বা ওয়েবসাইটকে। তবে তারপরেও স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেড তার আকর্ষণ হারায়নি, এমনটাই দাবি পত্রিকাটির প্রকাশনার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের। তবে জনপ্রিয়তা যে কিছুটা হলেও কমেছে, তা মানছেন তাঁরা।

মেরেডিথ কর্পোরেশনের মুখপাত্র জানিয়েছেন, বর্তমানে বছরে ২৭টি সংখ্যা বের হয় স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেড-এর। তাতে লাভ হয় ভালোই। তারপরেও এই ব্র্যান্ডকে বিক্রিক করে দেওয়া হয়েছে। তবে এখনও প্রকাশনার বিষয়টি দেখাশোনা করবে মেরেডিথ-ই। বদলে অথেনটিক ব্র্যান্সকে তাএকটি সলাইসেন্স ফি দেবে। আর অথেনটিক ব্র্য়ান্ডস স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেডকে অন্যান্য প্ল্যাটফর্মে আনার পরিকল্পনা করছে। লাইভ ইভেন্ট, কনফারেন্স, জুয়া, ভিডিও গেমস-এর মাধ্যমে স্পোর্টস ইলাস্ট্রেটেডকে আরও বেশি সংখ্যক মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করা হবে।