কাজ দিল হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন-এ। বিরাট স্বস্তি পেলেন করোনাভাইরাস মহামারীজনিত কারণে আমেরিকাতে আটকে পড়া হাজার হাজার ভারতীয় নাহরিক। মঙ্গলবার, মার্কিন সরকার এইচ-১বি ভিসাধারীদের ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধির আবেদন করার অনুমতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল।

এইচ-১ বি ভিসাধারীদের বলা হয় ননন-ইমিগ্র্যান্ট। অর্থাৎ তারা উদ্বাস্তু নয়। তাত্ত্বিক বা প্রযুক্তিগত দক্ষতার প্রয়োজন, এমন বিশেষ পেশার জন্য মার্কিন সংস্থাগুলি যাতে বিদেশী কর্মী নিয়োগ করতে পারে, তার জন্য এই ভিসা দেয় সেই দেশের সরকার। মার্কিন সংস্থাগুলি ভারত ও চিনের মতো দেশগুলি থেকে প্রতি বছর কয়েক হাজার কর্মচারী নিয়োগের জন্য এই ভিসার উপরই নির্ভর করে। তবে এইচ-১বি ভিসা প্রকল্পের সবচেয়ে বেশি সুবিধাভোগী ভারতীয়রাই।

এদিন, ইউএস ডিপার্টমেন্ট অফ হোমল্যান্ড সিকিউরিটি এক বিবৃতি দিয়ে তাদের এই নতুন সিদ্ধান্তের কতা দানায়। তারা বলেছে, করোনাভাইরাস মহামারীটির প্রত্যক্ষ ফলাফল হিসাবে অভিবাসন-সংক্রান্ত চ্যালেঞ্জ আসবে বলে তারা মেনে নিয়েছে। তাই নন-ইমিগ্র্যান্ট'দের কোভিড-১৯ এর কারণে তাদের পূর্ব অনুমোদিত থাকার সময়কালের বেসি সময় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে থাকার অনুমতি দেওয়া হবে। এর জন্য তাদের ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধির আবেদন বা ভিসার অবস্থা পরিবর্তনের অনুমতির জন্য আবেদন করতে হবে। আবেদনকারীরা নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে ফর্ম ভরলেই তাদের উপস্থিতি 'বেআইনী' হিসাবে বিবেচিত হবে না। সময়মতো স্থগিতের অনুরোধ দায়ের করা হলে ২৪০ দিন অবধি তাদের ভিসার মেয়াদ বাড়ানো হবে।

বিশ্বজুড়ে প্রায় সব দেশের সীমানা এখন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। ভারতেরও প্রবেশপথগুলি আপাতত বন্ধ। সেইসঙ্গে বিশ্বব্যাপী প্রায় সমস্ত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর-ও বন্ধ। ভারত এদিনই ২১ দিনের লকডাউন শেষে ফের আরও ১৭ দিনের জন্য নতুন করে লকডাউনের পথে হেঁটেছে। এই অবস্থায় কর্মসূত্রে বা শিক্ষার জন্য আমেরিকায় যাওয়া হাজার হাজার ভারতীয় দারুণ সমস্যায় পড়ে গিয়েছিলেন। ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে গেলেই বেআইনি অভিবাসী হিসাবে চিহ্নিত হতে হবে, এদিকে দেশে ফেরার কোনও উপায়ই নেই। এই অবস্থায় এদিনের এই ঘোষণা তাদের কাছে বিরাট পাওয়া। হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন-এ করোনা ধ্বংস হবে কিনা জানা নেই, তবে এই সমস্য়ার অন্তত সমাধান হয়ে গেল।