লাদাখে বিশ্বের দীর্ঘতম টেলিস্কোপ, এবার গ্রহ-তারা-ছায়াপথ ভারতীয় বিজ্ঞানীদের নাগালে

 ভারতের বৃহত্তম ও বিশ্বের সর্বোচ্চ গামা-রে টেলিস্কোপ থেকে এই বছরের শেষের দিকেই সম্প্রচার শুরু হবে, যা মহাবিশ্বের  নক্ষত্রদের অনুসন্ধানে এক নতুন দিগন্ত খুলে দেবে। 

| Jan 27 2020, 11:48 AM IST

Share this Video
  • FB
  • TW
  • Linkdin
  • Email

 ভারতের বৃহত্তম ও বিশ্বের সর্বোচ্চ গামা-রে টেলিস্কোপ থেকে এই বছরের শেষের দিকেই সম্প্রচার শুরু হবে, যা মহাবিশ্বের  নক্ষত্রদের অনুসন্ধানে এক নতুন দিগন্ত খুলে দেবে। 

লাদাখের আনলেতে সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে  ৪,৩০০ মিটার উচ্চতায় স্থাপন করা হয়েছে অ্যাটেমোসফেরিক চেরেঙ্কভ এক্সপেরিমেন্ট টেলিস্কোপ বা ম্যাস।

রাশিয়ান বিজ্ঞানী পাভেল চেরেনকভের মানানুসারে রাখা হয়েছে ম্যাসের নাম, যিনি আবিষ্কার করেছিলেন নির্দিষ্ট শর্তে চার্জযুক্ত কণাগুলি অ-পরিচালনকারী মাধ্যম পেরিয়ে যাওয়ার সময় আলোকিত হয়। চেরেনকোভ রেডিয়েশন হিসাবে পরিচিত এই ঘটনাটি জলের নিচে পারমাণবিক চুল্লিতে বৈশিষ্ট্যযুক্ত নীল আভা সৃষ্টি করে। 

চেরেনকোভ বিকিরণ পর্যবেক্ষণ করার জন্য  দূরবিনটি উঁচু জায়গায় স্থাপন করা হয়েছে, মহাজাগতিক গামা রশ্মি  পৃথিবীর উপরের বায়ুমণ্ডলের আঘাত হানার পর উৎপন্ন হয়।

ম্যাসে সজ্জিত হয়েছে ৩৫৬টি মিরর প্যানেল ও ১০০০টিরও বেশি ক্যামেরা, যা চেরনকভ রেডিয়েশনের সময় কয়েক ন্যানো সেকেন্ডর জন্য ফ্ল্যাশগুলিকে সনাক্ত করতে পারবে।  টেলিস্কোপের সমস্ত উপাদানগুলি তৈরি হয়েছে ভারতেই।