তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন তৃণমূলের তাবড় নেতারা। আরও বেশ কিছু নেতা ও বিধায়ক বিজেপিতে যোগদান করতে চলেছেন বলেও জল্পনা অব্যাহত রয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। এই অবস্থায় উল্টোছবি ধরা পড়ল বর্ধমানে। বিজেপি বড়সড় ভাঙন ধরাল নীচু তলার নেতাকর্মীরা। দল পদ পাওয়ার পরও সপ্তাহ খানেকও টিকল না। বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান করলেন ৫ নেতা। ঘটনার জেরে রাজনৈতিক চাপনউতোর শুরু হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে।

জানাগিয়েছে, দল পদ পেয়েছিলেন বর্ধমান শহর মণ্ডলের পাঁচ বিজেপি নেতা। শনিবার যুব তৃণমূল জেলা সভাপতি রাসবিহারী হালদারের হাত ধরে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলের পতাকা তুলে নেন তাঁরা। মুখ্যমন্ত্রীর উন্নয়নের জোয়ারে সামিল হওয়ার জন্যই ওই নেতারা গেরুয়া শিবির ছেড়েছে বলে মত তৃণমূল জেলা সভাপতির। অন্যদিকে, বিজেপি নেতাদের ভয় দেখিয়ে তৃণমূল যোগদান করানো হচ্ছে বলে অভিযোগ করল জেলা বিজেপি নেতৃত্ব।

তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছেন শুভেন্দু অধিকারী, সুনীল মণ্ডল সহ তাবড় নেতারা। এই অবস্থায় বিজেপির নীচু তলার নেতৃত্বদের ভাঙনের জেরে তীব্র অস্বস্তিতে পড়েছে বর্ধমান জেলা বিজেপি শিবির। বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতি শুভম নিয়োগীর দাবি, ''ভয় দেখিয়ে, আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে বিজেপি নেতাদের দলে টানছে তৃণমূল''। যদিও, তৃণমূলের পালটা দাবি, ''ক্লাস ফাইভ পাস নেতাকে লিগ্যাল কমিটির সদস্য করছে বিজেপি যুব মোর্চা। যাঁরা এটা মেনে নিতে পারছেন না, তাঁরাই তৃণমূলে যোগদান করছেন''।