নেতাজী জন্মদিনে ভিক্টোরিয়ায় জয় শ্রীরাম স্লোগান শুনে মমতার উঠে যাওয়া কেন্দ্র ব্যপক হইচই রাজ্য-রাজনীতিতে। রাজনৈতিক সভা না হওয়া সত্বেও কেন এমন হলে বল প্রশ্ন তুলে প্রতিবাদ জানিয়েছেন মমতা। তবে ভোটের আগে এমন ঘটনায় রীতিমত ক্ষুব্ধ অমিত,  কৈলাস, সায়ন্তনেরা। এনিয়ে তাঁরা টুইটও করেছেন।

 



বিশ্বভারতীর ছায়া নেতাজির জন্মদিনে,  'এটা কী ধরনের রাজনীতি',  ক্ষুব্ধ অমিত-কৈলাস


  অমিত মালব্য টুইট করে জানিয়েছেন,  'বিশ্বভারতীর শতবর্ষ পূর্তিতে অংশ নিতে অস্বীকার করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উত্তরাধিকারকে অপমান করেছিলেন। তিনি নেতাজির বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে তার বক্তব্য না দিয়ে একই কাজ করেছেন।' অপরদিকে, 'জয় শ্রীরাম স্লোগানে অপমানিত হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। এটা কী ধরনের রাজনীতি', বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়। 

Mamata Banerjee insulted the legacy of Rabindranath Tagore by refusing to attend Viswa Bharati’s centenary celebrations. She has done the same by not delivering her speech on the occasion of Netaji’s anniversary celebrations.

Bengal will not tolerate this disregard of its icons.

— Amit Malviya (@amitmalviya) January 23, 2021

 

 'তুমি তোমাদের বানর সেনাদের বোঝাও', পাল্টা তোপ কুণালের

যদিও এই ঘটনার পর গর্জে উঠেছেন তৃণমূলের কুণাল ঘোষ। এই প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুকে সরাসরি আক্রমণ বলেছেন, এই বাংলা নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর। সেখানে কী করে জয় শ্রীরামকে টেনে আনা হচ্ছে নেতাজীর ১২৫ তম জন্মদিনে। 'তুমি তোমাদের বানর সেনাদের বোঝাও', বলে বিজেপির নেতা-কর্মী-সমর্থকদের আক্রমণ করেছেন কুণাল ।

 

 

 ঠিক কী হয়েছিল ?

প্রথমত ভিক্টোরিয়ায় সঙ্গীতানুষ্ঠানের পরেই মঞ্চে বক্তব্য রাখতে আহ্বান জানানো হয়। কিন্তু এদিকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায় মঞ্চে ওঠার সময় দর্শকাসন থেকে শুনতে পাওয়া যায়, জয় শ্রীরাম ধ্বনি। আর তাতেই মেজাজ হারিয়ে ফেলেন মমতা।  তিনি বলেন,  এটা কোনও  রাজনৈতিক অনুষ্ঠান নয়, আমার মনে হয়, সরকারি অনুষ্ঠানের মর্যাদা রাখা উচিত। আমি তো ঋণী যে, নেতাজির জন্মদিনে কলকাতায় প্রধানমন্ত্রী এমন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন। কিন্তু কাউকে আমন্ত্রণ জানিয়ে অপমান করা যায় না। এই ঘটনার প্রতিবাদ জানাই।' এরপর আর কোনও কথা না বলে কোনও কথা না বলে 'জয়হিন্দ' বলে সিটে বসে পড়েন রাজ্য়ের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়।