রাজ্যে বিগত কয়েক বছরে ৩০০-এর বেশি বিজেপি কর্মীকে খুন হতে হয়েছে শাসক দলের হাতে। বারবার এই অভিযোগ করে এসেছে পদ্ম শিবিরের নেতারা। বিরোধী দলগুলি বারংবার অভিযোগ করেছে,  রাজ্যের আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতির এতটাই অবনতি হয়েছে যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করার মত পরিস্থিতিও তৈরি হয়েছে। সম্প্রতি বিজেপির সর্বভারতীয় সভীাপতি জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলার ঘটনায় সেই অভিযোগ আরও গুরুতর হয়েছে। 

বাংলার আইন-শৃঙ্খলার পরিস্থিতির অবনতির ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে কেন্দ্রীয় সরকারও। জেপি নাড্ডার উপর হামলার ঘটনার পর রাজ্।পালের কাছেও রিপোর্ট তলব করেছিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। রাজ্যপালের রিপোর্টের পর এক নয় দুবার রাজ্যের মুখ্য সচিব ও ডিজিপে তলব করেছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এই পরিস্থিতিতে রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন যত এগিয়ে আসবে আইনের শাসনের অবনতি আরও ঘটবে ববলে আশঙ্কা করছে বিরোধী দলগুলি। অপরদিকে,হুঁশিয়ারী দিয়ে শাসক দলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সাহস বা ক্ষমতা থাকলে রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করে দেখাক বিজেপি। এই পরিস্থিতি বাংলা সফরে এসে রাজ্যে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা হবে কিনা সেই বিষয়ে মুখ খুললেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ।

সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অমিত শাহ বলেছেন, রাষ্ট্রপতি শাসন এইভাবে জারি করা সম্ভব নয়। যখন নির্বাচন একেবারে এগিয়ে এসেছে। স্থিতি খারাপ ঠিকই, আমাদের কাছে প্রতি মাসে রাজ্যপাল রিপোর্ট পাঠাচ্ছেন। কিন্তু সংবিধানের ধারারা রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে ব্যবহার আমরা করিনা। ওটা কংগ্রেস দল করে। আমরা রৈজনৈতিক লড়াই করেই বাংলায় অপশাসনের সমাপ্তি ঘটাবো।' ফলে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর বক্তব্য থেকে এটুকু পরিস্কার যে বাংলায় রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হচ্ছে না। কিন্তু বাংলায় বিজেপি সরকার গঠনের বিষয়ে একশো শতাংশ আত্মবিশ্বাসী অমিত শাহ।