আশিষ মণ্ডল-বীরভূমঃ- লোকসভার পর এবার বিধানসভা নির্বাচনেও মা তারার কাছে ২২০ আসন চেয়ে বসলেন অনুব্রত। মা তারা তাকে আশ্বস্ত করেছে বলে দাবি অনুব্রতর। কিন্তু লোকসভায় মা তারা কথা রাখেননি। এবার কি হবে, তার উত্তর অবশ্য দেননি তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল।

 

আরও পড়ুন, একুশে জুটবে কি ১০০ আসন তৃণমূলের, ভবিষ্যতবাণী মুকুল রায়ের


'তৃণমূল আসন পাবে ২২০', তারা মায়ের অনুব্রতর কথা

এইদিকে বৃহস্পতিবার। তারপর আবার পয়লা পৌষ। কয়েক বছর পর এমন বিশেষ দিন এসেছে। তাই এই পূর্ণ দিনে তারাপীঠে মা তারার পুজো দিয়ে দেশ - দশ এবং দলের মঙ্গল কামনা করে পুজো দিলেন অনুব্রত মণ্ডল। সেই সঙ্গে মা তারার কাছে বিধানসভা নির্বাচনে ২২০ আসন চেয়ে বসলেন। যেমনটা করেছিলেন লোকসভা নির্বাচনের আগে। সে সময় মা তারা অনুব্রতকে রাজ্যের ৪২ টি আসনেই জয়লাভের আশ্বাস দিয়েছিলেন। কিন্তু কথা রাখেননি। তাহলে এবার কি হবে। অনুব্রতর কাছ থেকে কোন উত্তর মেলেনি। শুধু বলেন, 'আজ ভালো দিন। প্রায় একশো বছর পর এমন দিন এসেছে। তাই এই পূর্ণ দিনে মায়ের পুজো দিলাম। মায়ের কাছে ২২০ আসনে জয়লাভ করার প্রার্থনা করলাম। মা আমাকে আশ্বস্ত করেছেন।'

আরও পড়ুন, ভোট প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে কলকাতায় উপনির্বাচন কমিশনার, একুশের আগে ৫ দিনের সফরে সুদীপ জৈন

 

 দিল্লি থেকে BJP-র ফোন পেতেই অস্থির অনুব্রত 


 শুভেন্দু অধিকারীর দবদল প্রসঙ্গে তিনি বলেন,'নেতারা কর্মী তৈরি করে না। কর্মীরাই নেতা বানায়।' মুখ্যমন্ত্রী বুধবার উত্তরবঙ্গে দাবি করেন 'অনুব্রতকে দিল্লি থেকে ফোন করেছিল বিজেপিতে যোগদানের জন্য'। এনিয়ে প্রশ্ন করা হলে অনুব্রত বলেন, 'মুখ্যমন্ত্রী যা বলেছেন তার বাইরে আমি কিছু বলব না। তিনিই শেষ কথা।'এদিন হলুদ পাঞ্জাবী ও সাদা পাজামা পড়ে মা তারার কাছে মাথা নিচু করতে দেখা যায় অনুব্রত মণ্ডলকে। ছিলেন খোশ মেজাজে। অনুব্রতবাবুর সঙ্গে ছিলেন বীরভূম জেলা পরিষদের মেন্টর অভিজিৎ সিংহ, দলের রামপুরহাট ২ নম্বর ব্লক সভাপতি সুকুমার মুখোপাধ্যায়।