কৌশিক সেনঃ গোটা রাজ্যের সাথে সাথে উত্তর দিনাজপুর জেলায় বিধানসভা নির্বাচনের দামামা বেজে গিয়েছে। বিজেপি,  তৃনমূল কংগ্রেস ও জোটের প্রার্থীরা নিজ নিজ কেন্দ্রে প্রচার শুরু করে দিয়েছে।প্রতিদিন দলীয় প্রার্থীরা বিভিন্ন এলাকায় মিছিল, মিটিং করেছেন। পাল্লা দিয়ে চলছে দেওয়াল লিখন।কিন্তু   কংগ্রেস ও সি পি এমের ' স্টার ক্যাম্পেইনার'  প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দীপা দাসমুন্সী ও মহম্মদ সেলিমের দেখা নেই এখনো পর্যন্ত জেলায় প্রচারে।এই নিয়ে জেলার রাজনৈতিক মহলে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়েছে। এই স্টার ক্যাম্পেইনারদের জেলায় অনুপস্থিতির কারন হিসেবে প্রত্যেকেই আলাদা আলাদা ব্যাখ্যা দিয়েছেন। 

সমগ্র উত্তরবংগে কংগ্রেসের গড় বলা হতো রায়গঞ্জ তথা উত্তর দিনাজপুর জেলাকে।প্রিয়রঞ্জন দাসমুন্সীর অসুস্থ হওয়ার পরে তার স্ত্রী দীপা দাসমুন্সী এই আসন থেকে জিতে সাংসদ ও পরবর্তীতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হন।তার নেতৃত্বে উত্তর দিনাজপুর জেলা পরিষদ থেকে শুরু করে একাধিক  পুরসভা কংগ্রেস দখল করে।পরবর্তীতে মহম্মদ সেলিমের কাছে দীপা দাসমুন্সী হেরে গেলেও এই জেলায় কংগ্রেসের প্রচারের মুখ তিনিই। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে সারারাজ্যে কংগ্রেস ও সিপিএম জোট হিসেবে লড়াই করলেও রায়গঞ্জ আসনে সেই জোট ভেংগে যায়।মহম্মদ সেলিমের বিরুদ্ধে কংগ্রেস দীপা দাসমুন্সীকে প্রার্থী করে।নির্বাচনে দুজনেরই পরাজয় হয়।বিজেপি থেকে দেবশ্রী চৌধুরী জিতে মন্ত্রী হয়।এই ঘটনার পর থেকেই কংগ্রেসের উপর সি পি এম  কর্মীরা ক্ষুব্ধ।সেই ক্ষোভকে প্রশমিত করতেই আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে রায়গঞ্জ কেন্দ্রের জোট প্রার্থী তথা জেলা কংগ্রেস সভাপতি মোহিত সেনগুপ্ত  ১৪ মার্চ রায়গঞ্জ শহরের বিধানমঞ্চে অনুষ্ঠিত জোটের কর্মীসভায় সি পি এম কর্মীদের আছে ২০১৯ য়ের ঘটনার জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা চান।এতে সি পি এম কর্মীদের ক্ষোভ প্রশমিত হলেও দীপা দাসমুন্সীর প্রতি বামফ্রন্টের কর্মীদের রাগ একইরকম থেকে গিয়েছে। গত সপ্তাহে দীপা দাসমুন্সী কালিয়াগঞ্জে এসে মিটিং করলেও জেলাসদর রায়গঞ্জে ঢোকেন নি।এরপর থেকে জেলায় প্রচারে তাকে এখনো দেখা যায় নি।সূত্রে জানা গিয়েছে,  এবারের প্রচারে রায়গঞ্জ আসন ধরে রাখতে দীপা দাসমুন্সীকে সেখানে কিছুটা কৌশল করেই না রাখার কথা ভাবা হয়েছে। 

দিল্লি থেকে দীপা দাসমুন্সী টেলিফোনে জানিয়েছেন, " কয়েকদিনের মধ্যেই আমি জেলায় প্রচারে যাবো"জেলা কংগ্রেসের সহ সভাপতি পবিত্র চন্দ জানিয়েছেন, " দীপা দাসমুন্সী চলতি মাসের ২৫/২৬ তারিখ নাগাদ প্রচার শুরু করবেন।আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে তাকে কালিয়াগঞ্জ ও গোয়ালপোখর বিধানসভার স্পেশাল দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। " জেলায় সি পি এমের স্টার ক্যাম্পেইনার প্রাক্তন সাংসদ মহম্মদ সেলিম। তিনি নিজেই এবার চন্ডীপুর আসন থেকে লড়াই করছেন।টেলিফোনে তিনি জানিয়েছেন, " আমার নিজের কেন্দ্রে প্রচারের পাশাপাশি রাজ্যের অন্যান্য জায়গাতেও আমাকে যেতে হবে। এর মাঝে সময় বের করতে পারলে অবশ্যই প্রচারে যাবো।"