বোলপুরে তখন শাহ-র সফর ঘিরে উন্মাদনা। মানুষ একবার দেখতে চায় তাঁদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে। লাইট-আলোর ফোকাসে তখন শুধুই শাহ। আর এমনই নিঃশব্দে বাংলার জেলায় ঘুরে দেখেছেন শাহ-র সপ্তরথী।

প্রসঙ্গত এই শাহ-র সপ্তরথীর মধ্যে যেমন উত্তরপ্রদেশের উপ-মুখ্যমন্ত্রী কেশবপ্রসাদ মৌর্যও রয়েছেন। শনিবার হুগলির চুঁচুড়া ছাড়াও পাড়ায় পাড়ায় ঘুরে দলের জনসম্পর্ক কর্মসূচিতে যোগ দিলেন মোদী-শাহ-র এই নির্ভরযোগ্য নেতা। তবে শুধু কেশবপ্রসাদ মৌর্য নন, পশ্চিমবঙ্গের একুশের বিধানসভার লক্ষ্যে আরও ৬ নেতার উপরে দায়িত্ব দিয়েছেন অমিত শাহ। সেই নেতাদের মধ্য়ে রয়েছেন ৫ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অর্জুন মুন্ডা, সঞ্জীবকুমার বালিয়ান, গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াত, মুকেশ মাণ্ডবিয়া এবং প্রসাদ সিং পটেল। রয়েছেন মধ্যপ্রদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নরোত্তম মিশ্র। বিজেপি সূত্রে খবর, এই ৭ জনের উপরে রাজ্যের ৬ টি করে লোকসভা কেন্দ্রের দায়িত্ব দিয়েছেন শাহ। 

শনিবার রাতে রাজারহাটে হোটেলে নির্বাচনী কৌশল নিয়ে যে বৈঠক করেন অমিত সেখানে এই সকল নেতারা হাজির ছিলেন। এছাড়াও ছিলেন কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। জানা গিয়েছে, ধর্মেন্দ্র এই তালিকায় না থাকলেও নির্বাচনের আগে তাঁকে বারবার বাংলায় আসতে বলেছেন অমিত শাহ। আর মূল দায়িত্বে থাকা ৭ জনকে বিধানসভা নির্বাচন অবধি প্রতি সপ্তাহে আসতে বলা হয়েছে।