চব্বিশ ঘন্টা পেরোতে না পেরোতেই সায়নী-তথাগত বিতর্কের ছবি গেল ঘুরে।  এবার ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের অভিযোগে তথাগত-র বিরুদ্ধে  এফআইআর (FIR) হেয়ার স্ট্রিট থানায় করলেন অজয় দে নামের এক ব্যাক্তি। অভিযোগ, ২০১৫ সালে যে টুইট করে অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ (Saayoni Ghosh) হিন্দু ভাবাবেগে আঘাত করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে, এবার তার রিটুইট করে একই অপরাধে অভিযুক্ত হলেন (BJP) বিজেপি নেতা তথাগত রায় (Tathagata Roy)।

 বুলাদির শিবরাত্রি

 ঘটনার সূত্রপাত একটি ছবিকে কেন্দ্র করে। ছয় বছর আগে ২০১৫ সালে  সায়নীর টুইটার থেকে পোস্ট করা ছবিটি ভাইরাল হয়। ছবিটিতে দেখানো হয়েছে শিবরাত্রী পালন করতে শিবলিঙ্গে কন্ডোম পরাচ্ছেন বুলাদি।  মূলত ওই কার্টুনটি সৃষ্টি হয়েছিল ১৯৯৮ সালে এইডসের (AIDS) বিরুদ্ধে সচেতনতা গড়ে তোলার জন্য। পরে সেই ছবিটি ব্যবহার করা হয় শিবরাত্রীর উৎসবকে কটাক্ষ করতে। সেই ছবিই টুইট করেছিলেন সায়নী। সম্প্রতি সেই ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। 

সায়নীর 'জয় শ্রীরাম' নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য়

তবে শুধু জল এখান থেকেই গড়াইনি। গোটা ঘটনাকে উসকে দেয় সাম্প্রতিককালে সায়নীর  'জয় শ্রীরাম' নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য়ে। উল্লেখ্য, সম্প্রতি সায়নী বলেন, পশ্চিমবঙ্গকে সোনার বাংলা বানাবে কোনও দল, কেউবা বানাবে নবরত্ন। কিন্তু বাংলার মানুষ কি চায়, তা কি কেউ জানতে এসেছে। এদিকে ধর্ম-দেব-দেবী নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনীতি। জয় শ্রীরাম ধ্বনিকে যেভাবে ক্রমশই রণধ্বনিতে পরিণত করা হয়েছে, তা কখনওই কাম্য নয়। ইশ্বরের নাম ভালবেসে বলা উচিত। এটা বাঙালির সংষ্কৃতির মধ্যে পড়ে না। 

 সায়নীকে ধর্ষণের হুমকির অভিযোগ 

এরপরেই বিতর্কিত মন্তব্য় উসকে টেনে নিয়ে যায়  ২০১৫ সালের ছবি টুইটে। ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাতের কারণ দেখিয়েই ভারতীয় দন্ডবিধির ২৯৫ এ   ধারায়  কলকাতার রবীন্দ্রসরোবর থানায় সায়নীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছিলেন তথাগত। এবার তথাগত-র বিরুদ্ধে পাল্টা এফআইআর দায়ের হল (FIR) হেয়ার স্ট্রিট থানায় (Hare Street Police Station)।যদিও সায়নীর ওই টুইটটি নিজের টুইটার হ্যান্ডল থেকে মুছে ফেলেছেন তথাগত। এখানেই শেষ নয় সায়নীকে লাগাতার সোশ্যাল মিডিয়ায় আক্রমণ ও ধর্ষণের হুমকির অভিযোগ।