ভোট প্রচারের প্রতিশ্রুতি মতই বিজেপি লক্ষ্য সোনার বাংলা গঠন। বিজেপির নির্বাচনী ইস্তেহার সংকল্পপত্র প্রকাশ অনুষ্ঠানেই সেইকথার বারবার মনে করিয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা অমিত শাহ। নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী রবিবার ইস্তেহার সংকল্প পত্র প্রকাশ করেন করেন তিনি। গেরুয়া মলাটে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও দলের সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডার ছবি রয়েছে প্রচ্ছদে। সঙ্গে লেখা রয়েছে 'এবার সোনার বাংলা, এবার আসল পরিবর্তন'। ইস্তেহারের নাম দেওয়া হয়েছে  'সংকল্প পত্র'।  বিজেপির রাজ্যসভাপতি দিলীপ ঘোষ রাজ্যের কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়কে পাশে নিয়েই সংকল্পপত্র প্রকাশ করেন অমিত শাহ। 


অমিত শাহ এদিন স্পষ্ট করে দেন রাজ্যের নারী উন্নয়নে তাঁরা ব্রতী। বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে রাজ্যের মহিলাদের জন্য সরকারি চাকরির ক্ষেত্রে ৩৩ শতাংশ সংরক্ষণ করা হবে। তিনি আরও বলেন তাঁরা নীলবাড়ি দখল করলে এই রাজ্যেও চালু হবে প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মান নিধি প্রকল্প। এই প্রকল্পের মাধ্যমে কৃষকরা ১৮ হাজার টাকা পাবেন। একই সঙ্গে তাঁর অভিযোগ, গত তিন বছর ধরে এই রাজ্যে এই প্রকল্প চালু করেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্যের ৭৫ লক্ষ কৃষক উপকৃত হবেন বলেও দাবি করেন তিনি। 


বিজেপির ইস্তেহারে স্থান পেয়েছে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনও। অমিত শাহ বলেন, বিজেপি রাজ্যের ক্ষমতায় এলে প্রথম মন্ত্রিসভার বৈঠকেই কার্যকর করা হবে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন। তিনি বলেন ৭০ বছর ধরে যেসব শরণার্থীরা বাংলায় রয়েছেন তাঁদের নাগরিকত্ব প্রদান করা হবে। প্রতিটি শরণার্থী পরিবারকে আগামী পাঁচ বছর এক লক্ষ করে টাকা দেওয়া হবে বলেও প্রতিশ্রুতি রয়েছে বিজেপির ইস্তেহারে। রাজ্যে তিনটি এইমস হাসপাতাল তৈরি হবে বলেও ভোট প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন অমিত শাহ। তিনি বলেন জঙ্গলমহল, উত্তরবঙ্গ ও সুন্দরবন এলাকায় তিনটি হাসপাতাল তৈরি হবে। রাজ্যের প্রত্যন্ত এলাকার মানুষরাও নিজের এলাকায় বসে উন্নতমানের চিকিৎসা পাবেন। চিকিৎসার জন্য তাঁদের আর কলকাতায় আসতে হবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

অবশেষে কলকাতার ভোটার হলেন মিঠুন চক্রবর্তী, তবে কি তিনি বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন ...

মনে আছে নন্দীগ্রামের বাম বিধায়ক ইলিয়াসকে, বাবার সম্মান ফেরাতে এবার প্রার্থী তাঁর ছেলে সাদ্দাম হসেন ...

বিজেপির ইস্তেহারে রাজনৈতিক হিংসার বিরুদ্ধেও কড়া বার্তা রয়েছে। অমিত শাহ বলেন, রাজ্যের রাজনৈতিক হিংসা দমনের জন্য তৈরি হবে সিট। অভিযুক্তদের বিরুদ্দে দ্রুততার সঙ্গে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনি আরও বলেন, রাজ্যের রাজনৈতিক হিংসার ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসন প্যাকেজ হিসেবে ২৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত সরবরাহ করা হবে। বিজেপি রাজ্যের ক্ষমতায় এলে জাল টাকা ও বেআইন অস্ত্রের বিরুদ্ধেও কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। তৈরি করা হবে টাস্ক ফোর্স। জমি মাফিয়া  গরুপাচার রুখতেও কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে ঘোষণা করেছেন অমিত শাহ।