সব জল্পনা উড়িয়ে দিয়ে কলকাতার ভোটার হলেন মিঠুন চক্রবর্তী। দীর্ঘ দিন ধরেই তিনি মহারাষ্ট্রের ভোটার ছিলেন। বিজেপেতে যোগদানের পর পশ্চিমবঙ্গের ভোটার তালিকায় নাম তোলায় আবারও মিঠুন চক্রবর্তীকে নিয়ে রাজনৈতিক গুঞ্জন তৈরি হয়েছেন। রাজনৈতিক মহল জানতে চাইছে 'তবে কী তিনি বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী?' যদিও এই বিষয় নিয়ে এখনও পর্যন্ত মিঠুন চক্রবর্তী ও বিজেপির তরফ থেকেই কিছুই জানান হয়নি। প্রথম থেকেই বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব বলে আসছে বাংলা দখল করাই তাঁদের মূল লক্ষ্য। জয়ী বিধায়করাই নিজেদের নেতা নির্বাচন করবেন। 

মহামারির কালো ছায়া, অক্টোবরের পর আবার ভারতে দ্রুতগতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ...

করোনা সংক্রমণ রুখতে পারে চবনপ্রাস, তেমনই তথ্য উঠে আসছে নতুন গবেষণায় ...
বিজেপি সূত্রের খবর বেলগাছিয়া সংলগ্ন,২২/ ১০৮ রাজা রাজা মন্দির স্ট্রিটের একটি বাড়ির  ঠিকানাতেও ভোটার হওয়ার আবেদন জমা দিয়েছেন মিঠুন চক্রব্রতী। এই বাড়িটি তাঁর বোনের বলেও সূত্রের খবর। মিঠুন চক্রবর্তীর এক আত্মীয় জানিয়েছেন, মহাগুরু নির্বাচনে লড়াই করবেন কিনা তা এখনও পর্যন্ত তিনি জানেন না। তবে তিনি স্পষ্ট করে দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের ভোটার হওয়ার জন্য তাঁর বাড়ির ঠিকানায় নাম নথিভুক্ত করিয়েছেন মিঠুন চক্রবর্তী। মিঠুনের আত্মীয়া আরও জানিয়েছেন কলকাতায় এলে সচারচর তাঁর বাড়িতেও ওঠেন অভিনেতা। বর্তমানে এই রাজ্যের ভোটার হওয়ার জন্য তাঁর বাড়ি ঠিকানাতেই নিজের নাম নথিভুক্ত করিয়েছেন তিনি। 

মিঠুন চক্রবর্তী বাংলার ভোটার হওয়ার কিছুটা হলেও স্বস্তির হাওয়ার বিজেপি শিবিরে। কারণ এর আগে বিজেপি আলিপুরদুয়ারের প্রার্থী করেছিল বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অশোক লাহিড়ীকে। কিন্তু কিছু পরেই জানা যায় তিনি বাংলার ভোটার নন। তড়িঘড়ি নাম পরিবর্তন করে প্রার্থী করা হয় সুমান কাঞ্জিলালকে। নিয়ম অনুযায়ী মনোনয়ন জমা দেওয়ার মাত্র সাত দিন আগে সংশ্লিষ্ট রাজ্যের ভোটার হতে হয়। মিঠুন চক্রবর্তী রাজ্যের ভোটার হওয়ার তাঁকে প্রার্থী করতে নতুন করে আর কোনও সমস্যা থাকল না বলেও মনে করছেন বিজেপির একাংশ। কারণ মিঠুন ইতিমধ্যেই বসন্ত চক্রবর্তী নামে ভোটার কার্ড তৈরি করে ফেলেছেন। 

'চাইলে দিদি আমার মাথায় পা রাখতে পারেন', তৃণমূলের দেওয়াল লিখন নিয়ে কটাক্ষ মোদীর ...

'এত নির্মম প্রধানমন্ত্রী কখনও দেখিনি', নন্দকুমারের জনসভায় আর ঠিক কী কী বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ..
গত ৭ মার্চ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উপস্থিতিতেই ব্রিগেড  প্যারেড গ্রাউন্ডো বিজেপি শিবিরে যোগ দিয়েছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী। তাঁকে নিয়ে কিছুটা হলেও উচ্ছসিত বিজেপি শিবির। বিজেপি শিবিরে যোগদান করেই মিঠুন চক্রবর্তী তাঁর ফিল্মি ডায়লগ নিয়ে শ্রোতার মন কেড়ে নিয়েছিলেন। 'মারব এখানে লাস পড়বে শ্মশানে' 'আমি কোবরা'- র মত জনপ্রিয় ডায়লগ বলেন। আর তিনি বলেছিলেন দল যদি চায় তাহলে ভোট যুদ্ধে সামিল হতে তিনি তৈরি রয়েছেন।