ভোটের দিন, সাধারণত তাঁকে দাপিয়ে বেড়াতে দেখা যায়। তাঁর নিজস্ব বাহিনী আছে, তারাই ভোট নিয়ন্ত্রণ করে। এমনটাই শোনা যায়। কিন্তু, মঙ্গলবার বিধানসভা নির্বাচন ২০২১-এর তৃতীয় দফায় ক্যানিং-এর বেতাজ বাদশা হিসাবে পরিচিত সওকত মোল্লাকেই আইএসএফ ও বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগ করতেদেখা গেল। রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন, তাহলে কি পায়ের তলার মাটি হারাচ্ছেন সওকত?

এদিন, ক্যানিং পূর্ব বিধানসভা এলাকার সাতারার একটি ভোটকেন্দ্রের বাইরে ব্যাপক বোমাবাজির অভিযোগ উঠেছে। ভোটের দিন এই এলাকায় রাস্তায়, আশপাশের বাইরে বোমা বিস্ফোরণের দাগ দেখা গিয়েছে। এমনকী পথের পাশে তাজা বোমাও দেখা গিয়েছে। সেই বোমা নিষ্ক্রিয় করার জন্য ভাঙর থানায় খবর দেওয়া হয়েছে।

ক্যানিং পূর্বের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী সওকত মোল্লার অভিযোগ আইএসএফ-এর 'সমাজবিরোধী'রাই এই বোমাবাজি করেছে। তিনি ইতিমধ্য়েই পুলিশকে এই বিষয়ে জানিয়েছেন। নির্বাচন কমিশনেও এই বিষয়ে অভিযোগ করেছেন তিনি। আপাতত তিনি সেই ভোটকেন্দ্রের বাইরেই রয়েছেন।

অন্যদিকে, বিজেপির পক্ষ থেকে সওকত বাহিনীর বিরুদ্ধেই বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের ভয় দেখানোর অভিযোগ উঠেছে। তবে সওকত মোল্লার দাবি, বিজেপির সমস্ত অভিযোগ মিথ্যা। কোনও দল যখন দুর্বল হয়ে যায় তখন তারা ভিত্তিহীন মন্তব্য করে। বিজেপিই গুন্ডামি করার জন্য বাইরে থেকে অর্থ ও লোক নিয়ে এসেছে। তাই বিজেপির সব অভিযোগ মিথ্যা বলে উড়িয়ে দিয়েছেন তিনি। তাঁর দাবি, দক্ষিণ ২৪ পরগনার ভোটাররা তৃণমূল কংগ্রেস ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেই রয়েছেন।

তবে, গত ৫-৬ বছর ধরে এই এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়া কোনও রাজনৈতিক দলকেই মাথা তুলে দাঁড়াতে দেখা যায়নি। পঞ্চায়েত থেকে বিধানসভা, লোকসভা - সবই শাসক দলের দখলে। সেখান থেকে শাসক দলের প্রার্থী অভিযোগ করছেন, ছবিটা বদলের - এমনটাই জানাচ্ছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।