মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুর বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছেন জাকির হোসেন।  নিমতিতা স্টেশনে আইডি বিস্ফোরণ কান্ডে জখম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মন্ত্রী জাকির হোসেনের ওপর পুনরায় ভরসা রেখেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। প্রার্থী হাসপাকালে ভর্তি থাকলে কী হবে, দলের কর্মী ও জাকির হোসেনের অনুগামীরা এলাকায় প্রচার শুরু করে দিয়েছেন। প্রার্থীর মন্তব্য মানুষের কাছে পৌছে দেওয়ার জন্য প্রযুক্তির ব্যবহারও করছেন তৃণমূল কর্মীরা।

একমাসেরও বেশি সময় ধরে হাসপাতালে ভরতি রাজ্যের শ্রম প্রতিমন্ত্রী ও বিদায়ী বিধায়ক জাকির হোসেন । অসুস্থতার কারণে প্রচারে শামিল হতে পারবেন না তিনি। নিজের বিধানসভা কেন্দ্রে উপস্থিত থাকতে না পারলেও জাকিরের কেবলমাত্র ছবি নিয়ে আর ভিডিও বার্তাকে জায়ান্ট স্ক্রীনে সাধারণ মানুষকে দেখিয়ে চলছে জোড় কদমে প্রচার। বিশেষ সূত্র মারফত জানা যায়, আগামী ২এপ্রিল তিনি মনোনয়ন জমা দিতে কলকাতা থেকে অ্যাম্বুল্যান্সে আসবেন জঙ্গিপুরে। কর্মীদের মনোবল বাড়াতে হাসপাতাল থেকে একটি ভিডিও বার্তা প্রকাশ করেছেন বুধবার জাকির হোসেন।তিনি বলেন,'জঙ্গিপুরের মানুষের আশীর্বাদ আর ডাক্তারদের চেষ্টায় এত কিছুর পর আমি কথা বলতে পারছি। মুখ্যমন্ত্রী, ববি দা, নির্মল মাজির প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। এলাকাবাসীকে বলছি, আমি তাঁদের পাশে রয়েছি। আজীবন পাশে থাকব। আর জঙ্গিপুরবাসী আমার পাশে ছিলে, আছে আর থাকবে।'

১৭ ফেব্রুয়ারি রাতে তিস্তা তোর্সা এক্সপ্রেস ধরতে নিমতিতা স্টেশনে গিয়েছিলেন জাকির হোসেন। সেই সময় স্টেশনে বোমা বিস্ফোরণ হয়। যার জেরে গুরুতর জখম হন শ্রমমন্ত্রী-সহ কমপক্ষে ২৫ জন। রাতেই জাকির হোসেনকে নিয়ে আসা হয় কলকাতায়। সেই থেকে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মন্ত্রী। অস্ত্রোপচারের পর পরিস্থিতি স্থিতিশীল হলেও এখনও পুরোপুরি সুস্থ নন তিনি। তবে এলাকায় যেতে না পারলেও, নিজের জয়ের বিষয়ে একশো শতাংশ নিশ্চিৎ জাকির হোসেন।