কোভিড-১৯ মহামারির আগমনের পর ভারতে প্রথম নির্বাচন হয়েছিল বিহারে। তখনও গবেষণাগারের বাইরে না আসলেও বিহারের বিধানসভা নির্বাচনে অন্যতম ইস্যু হয়েছিল কোভিড ভ্যাকসিন। বিজেপির নির্বাচনী ইস্তাহারে বলা হয়েছিল, এনডিএ-কে ক্ষমতায় পেরালে রাজ্যের সকলকে বিনামূল্যে করোনার টিকা দেওযা হবে। যা নিয়ে বিতর্কও কম হয়নি। পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনের আগে ফের রাজনীতির অংশ হয়ে উঠল ভ্যাকসিন। রাজ্যের সকল নাগরিককে ভোটের আগেই বিনামূল্যে টিকা দিতে চেয়ে নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি দিলেন তিনি।

এখনও পর্যন্ত ভারতে রোনার টিকাকরণের বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করছে কেন্দ্রীয় সরকার। প্রথম দফায় স্বাস্থ্য়পরিষেবা কর্মী, ডাক্তার নার্সদের টিকা দিয়েছিল কেন্দ্রীয় সরকার। তা বিনামূল্যেই দেওয়া হয়েছে। পয়লা মার্চ থেকে শুরু হবে দ্বিতীয় দফার টিকাকরণ। টিকা দেওয়া হবে ষাটোর্ধ্ব ও ৪৫-এর বেশি বয়সী এবং কো-মরবিডিটি রয়েছে এমন ব্যক্তিদের। সরকারি হাসপাতালে বিনামূল্যে টিকা দেওয়ার পাশাপাশি বেসরকারি হাসপাতালে অর্থের বিনিময়েও টিকা মিলবে। তবে প্রথম থেকেই রাজ্যের সকল নাগরিককে বিনামূল্যে টিকা দেওয়ার কথা বলছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বুধবার রাজ্যসরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে নির্বাচনের সময় কোভিড সংক্রমণ আরও বেশি করে ছড়িয়ে পড়তে পারে আশঙ্কায় ভোটের আগেই সকল রাজ্যবাসীকে কোভিড টিকা দিতে চাইছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার জন্য প্রয়োজনে টিকা প্রস্তুতকারকদের থেকে রাজ্য আলাদা করে টিকা ক্রয় করবে। তবে যেহেতু কেন্দ্র এখনও টিকাকরণ এর বিষয়টি নিয়ন্ত্রণ করছে, তাই আলাদা করে টিকা কিনতে গেলে কেন্দ্রের অনুমতি দরকার। তার জন্যই এদিন রাজ্যের পক্ষ থেকে কেন্দ্রকে চিঠি পাঠানো হয়েছে।