নন্দীগ্রামে বিপুল ভোটে জিতবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সাংবাদিক সম্মেলন করে এমনই দাবি করল তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায় বলেছেন, বিজেপির গুন্ডারা ভোটারদের হুমকি দিয়েছে। তাদের ভোট দিতে দেয়নি। বয়াল গ্রামের ৭ নম্বর বুথের মতো বেশ কয়েকটি বুথে নির্বাচনী এজেন্টও বসতে দেওয়া হয়নি। কমিশনও এই দফা ভোটের জন্য যথেষ্ট প্রস্তুতি নেয়নি। তারপরেও তাঁরা নিশ্চিত যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই নন্দীগ্রামে জয়লাভ করছেন। তবে, নির্বাচন কমিশন এবং বিজেপির গুন্ডাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলেও এই নিয়ে অভিযোগ করা হবে কিনা, তাই নিয়ে দল পর্যালোচনা করে সিদ্ধান্ত নেবে বলে জানা গিয়েছে।

সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন দেশের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় বিদেশ ও অর্থ দফতরের মন্ত্রী তথা বর্তমান তৃণমূল নেতা যশবন্ত সিনহা। তিনি জানিয়েছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শুধু জিতবেন তা নয়, যা খবর রয়েছে তাতে বিপুল ভোটে নন্দীগ্রামকে জিতবেন তিনি। শুধু তাই নয়, ভোটদান চলাকালীন অন্যত্র হলেও বাংলায় এসে প্রধানমন্ত্রীর জনসভা করা নিয়েও আপত্তি তোলেন প্রাক্তন বিজেপি নেতা। মোদী এদিন নন্দীগ্রামের পাশাপাশি মমতা আরেকটটি আসন থেকে লড়তে পারেন বলে জল্পনা তৈরি করেছেন। নন্দীগ্রামের ভোটকে  প্রভাবিত করতেই তিনি এমনটা করেছেন, বলে দাবি করেছেন তিনি।

অন্যদিকে, বিজেপির বিরুদ্ধে 'মাইন্ড গেম' খেলার অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল নেতা ডেরেক ও'ব্রায়ান। নন্দীগ্রামে মমতা জিতছেন এবং বিজেপি হারছে বলেই এই মাইন্ড গেম শুরু করেছে বিজেপি, এমনটাই অভিযোগ ডেরেকের। তাঁর দাবি, ২০১৬ সালের নির্বাচনে নন্দীগ্রামে তৃণমূলের যা ফল হয়েছিল, এবার তার থেকে বেশি ভালো ফফল হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি। তাঁর সাফ কথা, বাংলায় অমিত শাহের মাইন্ড গেম চলবে না, মমতার খেলা হবে। নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানানোর বিষয়ে তাঁরা বিবেচনা করছেন বলেও জানিয়েছেন ডেরেক।