গত ৭ মার্চ ব্রিগেডের সভা থেকে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী। নিজের ভঙ্গিতে দিয়েছিলেন সিনেমার ডায়লগ। 'বালিবোরা নয়, জলঢোড়া নয়, আমি জাত গোখরো, এক ছোবলেই ছবি'। মিঠুনের এই ডায়লগ সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় তুলেছিল। ব্রিগেডের সভা থেকে মিঠুনের প্রশংসা করেছিলেন খোদ নরেন্দ্র মোদী। তারপর থেকেই জল্পনা শুরু হয়ে যায় বিজেপির মুখ্যমন্ত্রীর মুখ কি তাহলে মিঠুন চক্রবর্তী। সেই বিষয়ে মিঠুন ও বিজেপি এখনও কোনও মুখ না খুললেও, এবার প্রচারে 'তুফান' তুলতে ময়দানে নামছে বড় পর্দার 'এমএলএ ফাটাকেষ্ট'। 

বিজেপিতে যোগদানের পরই জানিয়েছিলেন বাংলায় বিজেপর হয়ে তিনি একাধিক রোড শো, সভা করবেন। কিন্তু কবে থেকে করবেন তা নিয়ে জল্পনা চলছিল। ৭ মার্চের পর বেশ কিছু দিন কেটে গেলেও মিঠুন  প্রচারে না নামায় উঠছিল নানা প্রশ্ন। অবশেষে জানা গিয়েছে ৩০ মার্চ নন্দীগ্রামে  শুভেন্দুর রোড শোয়ে ঝড় তুলতে যাচ্ছেন মিঠুন চক্রবর্তী। শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছেন,'৩০ মার্চ টেঙ্গুয়া মোড় থেকে নন্দীগ্রাম বাজার পর্যন্ত রোড শো হবে। আর তাতে উপস্থিত থাকবেন মিঠুন চক্রবর্তী। তিনি উপস্থিত থাকে বিজেপির হয়ে প্রচারে ঝড় তুলবেন। স্লোগান হবে, বিজেপি জিতবে, বিজেপি জিতবে, মমতা হারবে।'

নন্দীগ্রামের নির্বাচনের ফলের দিকে যে এবার গোটা দেশ তাকিয়ে সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। দিন-রাত এক করে নন্দীগ্রাম চষে ফেলছেন শুভেন্দপ। ফলে দ্বিতীয় দফার লভোটের আগে শেষ মুহূর্তে মিঠুন  ম্যাজিককে নন্দীগ্রামে কাজে লাগাতে চাইছে পদ্ম শিবির। একইসঙ্গে সেদিন নন্দীগ্রামের রেয়া পাড়ায় সভা করবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। ফলে শেষ লগ্নে 'ফাটাকেষ্ট' ও শাহ ম্যাজিকের প্রভাব নন্দীগ্রামে বিজেপির পক্ষে ভোট বাক্সে পড়ে কিনা সেটাই দেখার। যদিও নন্দীগ্রাম জয়ে আত্মবিশ্বাসী পদ্ম শিবির।