কেঁচো খুড়তে বেড়িয়ে আসবে কি কেউটে? নাকি ফাঁস হবে কোন বড়োসড়ো দুর্নীতি ? সে নিয়েই এখন পারদ চড়ছে  রাজ্যের  মধ্যে মুর্শিদাবাদে। বহরমপুরে এই প্রথম দেশের পাবলিক অ্য়াকাউন্টস কমিটির ৪ দিনব্যাপী বৈঠকে ঘিরে জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। রবিবার সেই গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক নিয়ে প্রাথমিক পর্যায়ের আলোচনা সারলেন পিএসি কমিটির চেয়ারম্যান অধীর রঞ্জন চৌধুরী।সোমবার থেকে শুরু হবে মূল বৈঠক।

পিএসসি চেয়ারম্যান অধীর রঞ্জন চৌধুরী জানান ,''মোটামুটি ১০ টি বিষয় নিয়ে আলোচনা হবে। মুর্শিদাবাদে পাট চাষ এখানে বিপুল পরিমাণে হয় তাদের আর্থিকভাবে সাহায্য করা থেকে শুরু করে পরিশ্রুত পানীয় জল সরবরাহ। মুর্শিদাবাদের জলে যেহেতু আর্সেনিকের প্রভাব অনেক বেশি। এছাড়াও 'নমামী গঙ্গে' দূষণমুক্ত করা নিয়েও আলোচনা পর্বে রাখা হবে।  বিষয়টিতে মুর্শিদাবাদের পাট ব্যবহার করে প্লাস্টিক বর্জন করতে বলা হচ্ছে। পাটকে কাজে লাগিয়ে বিভিন্ন রকম উপকরণ তৈরির প্রক্রিয়া যাতে করা যায় সেই দিকে নজর রাখা হচ্ছে। এক কথায় পাটকে 'গোল্ডেন ফাইবার' হিসেবে তুলে ধরা হবে। পশ্চিমবঙ্গে তাই বহু জুটমিল আছে বলা যেতেই পারে। পানীয় জলের কোথাও সমস্যা আছে কিনা। সরবরাহ ঠিক হচ্ছে কিনা। সেই ব্যাপারে দেখা হবে। এইসব সমস্ত বিষয় নিয়ে এই আলোচনা চলবে ও সেটি কেন্দ্র সরকারের কাছে জানানো হবে"।

জানাগেছে, সোমবার শিল্পতালুকের ওই হোটেলেই পিএসি-র মূল বৈঠক বসবে। চলবে ১৩ জানুয়ারি পর্যন্ত। ওই বৈঠকে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের আধিকারিকদেরও উপস্থিত থাকার কথা। এই বৈঠক প্রসঙ্গে অধীর চৌধুরী আরও বলেন, “পিএসি-কে মানুষের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্যই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এই বৈঠক হয়। এ বারের বৈঠকে পাট, বস্ত্রবয়ন শিল্প নিয়েও আলোচনা হবে। মুর্শিদাবাদ জেলা পাটের আদিভূমি। সেখানে কৃষকদের অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরতে পিএসি বৈঠক অনুষ্ঠিত হচ্ছে বহরমপুরে।”