দিল্লির বিস্ফোরণের জন্য বাতিল করতে হয়েছে অমিত শাহ-র বঙ্গ সফর। তাই বলে কি বন্ধ থাকবে যোগদান? না, শুধু স্থান-কাল যাচ্ছে পাল্টে। শনিবারই দিল্লি উড়ে যাচ্ছেন প্রাক্তন বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠক হবে অমিত শাহ, জেপি নাড্ডাদের সঙ্গে। তারপর যোগদান। এমনটাই সূত্রের খবর। আগেই এই ৫ জন-সহ প্রায় ২২ জন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতানেত্রীর, রবিবার ডুমুরজোলা স্টেডিয়ামে অমিত শাহ-র উপস্থিতিতে বিজেপি-তে যোগ দেওয়ার কথা ছিল।

তবে শুধু তিনি একাই নন। তাঁর সঙ্গে সঙ্গে এদিন দিল্লি যাচ্ছেন আরও ৫ জন - তৃণমূল কংগ্রেস থেকে বহিষ্কৃত বালির বিধায়ক বৈশালী ডালমিয়া, হাওড়ার প্রাক্তন মেয়র চিকিৎসক রথীন চক্রবর্তী, উত্তরপাড়ার বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল, রানাঘাটের প্রাক্তন বিধায়ক তথা প্রাক্তন পুরপ্রধান পার্থসারথী চট্টোপাধ্যায়। দিল্লিতে এদিন অমিত শাহ ও জেপি নাড্ডার সঙ্গে প্রত্যেকেরই আলাদা আলাদা সময়ে বৈঠক হবে বলে জানা গিয়েছে। কারণ অমিত শাহ দিল্লি বিস্ফোরণের ঘটনা নিয়ে এদিন দারুণ ব্যস্ত থাকবেন। একটানা সময় দিতে পারবেন না।  

এর জন্য এদিন রাজ্যে তিনি বিশেষ চার্টার্ড বিমানও পাঠাচ্ছেন বলে জানিয়েছে বিজেপির একটি সূত্র। এদিন বিকাল চারটে নাগাদ এই পাঁচ 'বেসুরো' তৃণমূলী নেতানেত্রী উড়ে যাবেন দিল্লির উদ্দেশে। এদিন সন্ধ্যাবেলাই তাঁরা প্রত্যেকেই অমনিত শাহ ও জেপি নাড্ডার উপস্থিতিতে পদ্ম শিবিরে যোদ দেবেন। তারপর এদিন রাতেই বা রবিবার সকালে তাঁরা ফের আরেক বিমানে কলকাতায় ফিরে আসবেন। তারপর হাওড়ার ডুমুরজোলা স্টেডিয়ামে উপস্থিত থাকবেন বিজেপি-র যোগদান মেলায়।

জানা গিয়েছে, ডুমুরজোলার অনুষ্ঠানে বিজেপি-র বড় কেন্দ্রীয় নেতা হিসাবে উপস্থিত থাকছেন শুধুমাত্র স্মৃতি ইরানি। তাঁর হাত থেকে বিজেপি-র সদস্যপদ নেওয়াটা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রীর জন্য সম্মানজনক হতে পারে বুঝেই অমিত শাহ এই সিদ্ধান্ত নেন। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে তিনি বলেন, অন্য চারজনকে নিয়ে দিল্লি এসে বিজেপিতে যোগ দিতে। রাজ্যে বিশেষ বিমান পাঠিয়ে রাজীবকে উপযুক্ত সম্মান দিতে চাইছেন তিনি।