পাহাড়ের তিনটি আসন বাদ দিয়ে শুক্রবার ২৯১টি আসনের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন গতবারের ২৮ জন বিধায়ক। টিকিট না পাওয়ার দিকে দিকে শুরু হয়েছে বিক্ষোভ, দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেওয়ার পালাও।  নাম না থাকাদের মধ্যে রয়েছে বাঁকুড়া শহরের বিদায়ী বিধায়ক শম্পা দরিপাও। টিকিট দেওয়ার আশ্বাস দিয়েও দল বঞ্চিত করেছে বলে অভিযোগ করেছেন শম্পা।

রাজ্যের বিভিন্ন বিধানসভা কেন্দ্রের পাশাপাশি বাঁকুড়া বিধানসভা কেন্দ্রের প্রার্থী হিসেবে অভিনেত্রী সায়ন্তিকা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম ঘোষনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যিনি কয়েক দিন আগেই দলে যোগ দিয়েছেন। কিন্তু দলের প্রতি একরাশ ক্ষোভ উগরে দিয়ে সায়ন্তিকা কে বহিরাগত আক্ষা দিলেন শম্পা দরিপা। বাঁকুড়া নিজের মেয়েকে চেয়েছিল তাই বাঁকুড়ার মানুষ এই প্রার্থী কে মেনে নিতে পারবে না বলেও জানিয়ে দেন তৃণমূলের বিদায়ী বিধায়ক। আগামী দিনে দলে থাকবেন কিনা সেই জল্পনাও জিইয়ে রাখলেন শম্পা দরিপা।

শম্পা দরিপা তৃনমূলের টিকিটে জিতে ২০১১ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত তৃনমূল পরিচালিত বাঁকুড়া পুরসভার পুরপ্রধান ছিলেন। ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তৃনমূলের টিকিট না পেয়ে শম্পা দরিপা কংগ্রেসে যোগ দেন।  বাঁকুড়া বিধানসভা কেন্দ্রে জোট প্রার্থী হিসেবে জয়ী হয়েই ফের তৃণমূলে যোগ দেন তিনি। এবারের বিধানসভা নির্বাচনে শম্পা দরিপা আশা করেছিলেন তৃনমূলের তরফে প্রার্থী করা হবে তাঁকেই। প্রচারও শুরু করে দিয়েছিলেন। অভিযোগ দল তাকে টিকিট দেবে বলেও, টিকিট দেননি। 

"

শম্পা দরিপার এই ক্ষোভকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃনমূলের জেলা নেতৃত্ব। সায়ন্তিকার নাম ঘোষনা হতেই বাঁকুড়া শহরে তৃনমুল প্রার্থী নামে দেওয়াল লিখন শুরু হয়ে যায়। বাজি ফাটিয়ে শহরে উতসবের আমেজে মেতে উঠেন দলীয় কর্মী সকর্থকরা। তৃনমূল বাঁকুড়ায় কোনো প্রার্থী খুঁজে পায়নি। তাই বহিরাগত সেলিব্রিটি প্রার্থী দিয়ে ভোট বৈতরনী পেরোনোর চেষ্টা করছে বলে দাবি বিজেপির। টিকিট না পাওয়ায় যেভাবে দিকে দিকে বিক্ষোভ বাড়ছে তাতে ভোটের আগে দলের অস্বস্তি বাড়বে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।