এবার কেডি সিং-এর গ্রেফতারি নিয়েও তৃণমূল কংগ্রেসকে নিশানা করেলন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। পূর্ব মেদিনীপুরের ভগবানপুরে অর্জুন নগরের সভামঞ্চে বসেই শুনেছিলেন কেডি সিং-এর গ্রেফতারির কথায়। আর সভা শেষ করে সাংবাদিকদের প্রশ্ন উত্তরে  নাম না করেই নাশানা করলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে। শুভেন্দু অধিকারির কথা কেডি সিং রাজ্যের ৭০লক্ষ মানুষকে প্রতারিত করেছেন তাঁর চিটফান্ডের মাধ্যমে। প্রতিরিতদের অধিকাংশই দঃস্থ বলেও দাবি করেছেন।  তাই শুধু গ্রেফতারি নয় কেডি সিং-এর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে  ইডি প্রতারিতদের টাকা ফেরতের ব্যবস্থা করুক বলেও দাবি তুলেছেন।


এই মন্তব্যের পরই শুভেন্দু অধিকারী নিশানা করেব তৃণমূল কংগ্রসেকে। তিনি বলেন, কান টানলে মাথা আসে। তারপরই শুভেন্দু অধিকারী প্রশ্নের ভঙ্গিতে বলেন, দিল্লিতে কেডি সিং কার কার বিয়ের অনুষ্ঠান স্পনসার করেছিলেন তা সবাই জানে। এই প্রশ্নের উত্তরও তিনি দিয়েদেন। বলেন, এক প্রভাবশালীর ভাতুষ্পুত্র। বাকিটা সাংবাদিকদের বুঝে নিতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। শুভেন্দু এদিন বলেন কেডি সিংকে দিয়েই নারদ করানো হয়েছিল। 

কেডি সিংকে বুধবার গ্রেফতার করেছে ইডি। চিটফান্ডকাণ্ডে তদন্তে তিনি যথাযত সহযোগিতা করছেন না বলেই গ্রেফতার করা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। কিন্তু কেডি সিং-এর গ্রেফতারি নিয়েই এরাজ্যে দুই যুযুধান রাজনৈতিক শিবির তরজায় নেমে পড়েছে। কেডি সিং-এর গ্রেফতারির পরই তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ নিশানা করেন মুকুল রায়কে। তিনি বলেন মুকুল রায়ই কেডি সিং-কে নিয়ে এসেছিলেন তৃণমূলের। পাল্টা মুকুল ঘনিষ্টদের কথায় দলের সুপ্রিমোর ছাড়পত্র ছাড়া রাজ্যসভার সাংসদ হওয়া সম্ভব নয়। এখন দেখার চিটফান্ড মামলায় আর কাকে কাকে নিয়ে টানাটানি করে ইডি বা সিবিআই।