নিজের গড় তমলুকের সভা থেকে তৃণমূলকে তীব্র আক্রমণ করলেন শুভেন্দু অধিকারী। নন্দীগ্রাম দিবসের প্রসঙ্গ তুলে তৃণমূলকে তীব্র আক্রমণ করেন তিনি। এতদিন নন্দীগ্রামে তৃণমূল নেতাদের দেখা যেত না। বৃহস্পতিবার ভোর ৪টের সময় শুভেন্দুর শ্রদ্ধা জানানোর পর নন্দীগ্রামে সভা করেন তৃণমূলের সুব্রত বক্সি। এই ৭ জানুয়ারি নন্দীগ্রামে মমতা সভা করবেন বলে ঘোষণা করেছিল তৃণমূল। কিন্তু সেই সভা স্থগিত হয়ে যায়।

মুখ্যমন্ত্রীর পালটা হিসেবে ঠিক তার পরের দিন ৮ জানুয়ারি সভা করবেন বলে জানিয়েছিলেন শুভেন্দু। মমতার সভা বাতিল হলেও নিজের সিদ্ধান্তে অনড় থাকেন বিজেপি নেতা। তা নিয়ে তমলুকের সভা থেকে নাম না করে মমতাকে কটাক্ষ করেন শুভেন্দু। তিনি বলেন, ''৭ জানুয়ারি আমার জীবনে রাজনৈতিক সংগ্রামের দিন। ২০০৭ সালে ৭ জানুয়ারি নন্দীগ্রামে অনেকে শহীদ হয়েছিলেন। কৃষিজমি রক্ষা করতে গিয়ে শহিদ হয়েছিলেন অনেকে। কাল মহা সমাবেশ। এক নেত্রী আসবেন বলে বলেছিলেন। এখন পগারপার''। নাম না করে মমতাকে আক্রমণ করেন শুভেন্দু।

পাশাপাশি, তমলুকের সভা থেকে তৃণমূলকে একযোগে আক্রমণ করেন শুভেন্দু। তাঁর নিশানায় ছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায় থেকে শুরু করে মদন মিত্র। নাম করে তিনি বলেন, ''নেতাই এতদিন যাঁরা মালা দিতে আসেনি। তাঁদের পাঠিয়েছে তৃণমূল। তাঁদের মধ্য়ে একজন নেশাগ্রস্ত অবস্থায় থাকে। বিনয় মিশ্রের সঙ্গে তৃণমূলের সম্পর্ক কী? জানতে চায় বাংলার মানুষ। বঙ্গধ্বনীর পর হরিধ্বনি হবে''। তমলুকের সভা থেকে তৃণমূলকে এভাবেই তোপ দাগেন শুভেন্দু।