বিজেপিতে যোগদানের দিনই মেদিনীপুর কলেজ মাঠের সভা থেকে শাসক দলের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। তারপর শাসক দলের একাধিক নেতা-মন্ত্রী আক্রমণ করেছেন তাকে। বুধবার কাঁথিতে তৃণমূলের সভা থেকে শুভেন্দু অধিকারীকে বিশ্বাসঘাতক, মীরজাফর বলেও তোপ দেগেছেন ফিরহাদ হাকিম, সৌগত রায়রা। মেদিনীপুর কোনও পরিবারের গড় নয় বলেও কটাক্ষ করেছেন তৃণমূল নেতারা। ময়দানে নেমেই জবাব দেওয়ার জন্য মুখিয়ে ছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। অবশেষে বৃহস্পতিবার কাঁথিতে নিজের প্রথম শক্তি প্রদর্শন করলেন শুভেন্দু অধিকারী।

এদিন কাঁথিতে দীর্ঘ ৫ কিলোমিটার রাস্তা মহামিছিল করেন শুভেন্দু অধিকারী। কার্যত জনসুনামিতে ভাসেন বিজেপি নেতা। রৈজনৈতিক মহলের মতে, মিছিলে জনসমাগম দেখে  শাসক দলের নেতাদের মাথায় চিন্তার ভাঁজ বেড়েছে। এই রোড শো-থেকেই তাকে বিশ্বাসঘাতক বলার জবাবও দেন শুভেন্দু অধিকারী। জবাব দিতে গিয়ে বিস্ফোরক তথ্য তুলে ধরেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি বলেন,'কলকাতার তৃণমূল ভবন তৈরি হয়েছে এনডিএ সরকারের কো-কনভেনর জর্জ ফার্নান্ডেজের দেওয়া টাকায়।' রাজনৈতিক মহলের মতে, কার্যত ঘুরিয়ে শুভেন্দু বুঝিয়ে দিলেন বিজেপির টাকাতেই তৈরি হয়েছে তৃণমূল ভবন।

প্রসঙ্গত,১৯৯৮ সালে প্রতিষ্ঠা তৃণমূলের। ১৯৯৯-তে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের শরিক হয় তৃণমূল কংগ্রেস। রেলমন্ত্রী হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সময় এনডিএ সরকারের মন্ত্রী  ও কো কনভেনর ছিলেন জর্জ ফার্নান্ডেজ। সেই সময় বিজেপি ও তৃণমূলের সক্ষতার বিষয়টি সকলেরই জানা। তবে সেই সময় তৃণমূল ভবন তৈরির টাকা কোথা থেকে এসেছিল এই বিষয়ে এতদিন কোনও প্রশ্ন ওঠেনি। কিন্তু শুভেন্দু অধিকারী তাকে বিশ্বাসঘাতক বলার জবাব দিতে গিয়ে এই বিস্ফোরক দাবি করে বোঝাতে চাইলেন কারা আসল বিশ্বাসঘাতক। একইসঙ্গে সভা থেকে শুভেন্দুর হুঁশিয়ারী, এটা তো সবে ট্রেলার, পুরো সিনেমা এখনও বাকি রয়েছে। ফলে আগামি দিনে আরও কি কি চমক দেন শুভেন্দু সেদিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।