আর মাত্র কয়েকটা দিনের অপেক্ষা, তারপরেই উমা সপরিবারে হাজির হবেন মর্ত্যে। শরতের নীল আকাশ আর কাশ ফুল জানান দিচ্ছে মা দুর্গার আগমন বার্তা। মা আসার আনন্দে মেতে উঠেছে সকলেই। ওলিতে গলিতে শোনা যাচ্ছে বাঁশ পড়ার শব্দ। সেই সঙ্গে শুরু হয়ে গিয়েছে পুজোর প্রস্তুতিও। আর এর সঙ্গেই কাঁধে কাধ মিলিয়ে চলছে হাওড়ার বালিটিকুরি সবুজ সংঘের থিমের প্রস্তুতি। সেরার লড়াইয়ে নামার জন্য প্রস্তুত তারাও।

আরও পড়ুনঃ এবার দূষণ রক্ষার অঙ্গীকার নিয়ে এগিয়ে চলেছে হাওড়ার ধাড়ার মাঠ ভ্রাতৃ সংঘ 

এবছর ২৫ তম বর্ষে পা দিতে চলেছে বালিটিকুরি সবুজ সংঘ। অর্থাৎ এবছর তাদের রজত জয়ন্তী বর্ষ। তাই থিম পুজোয় মেতেছে এই ক্লাব। এবছর তাদের থিম হল 'ফুলের ছন্দে সবুজ সংঘে'। ফুল প্রকৃতির এক আশ্চর্য দান। যা নিজের গন্ধ, বর্ণ, আকার দিয়ে মুগ্ধ করে সকলকে। সমস্ত জাতি ধর্ম নির্বিশেষে মাঙ্গলিক এবং সামাজিক কাজে ফুল একান্ত অপরিহার্য। এছাড়াও এক মাত্র ফুলই পারে দেবতা থেকে মানুষ সকলের কাছেই এক লহমায় মনের হাজারো অনুভুতি পৌঁছে দিতে। ফুল যেমন জাতি ধর্মের ভেদাভেদ ভুলে নিষ্পাপত্বের প্রতীক। ঠিক তেমন ভাবেই মানুষের মনকেও মেলে ধরার বার্তা নিয়েই তাদের পুজোমন্ডপকে ফুল দিয়ে সজ্জিত করতে চলেছে বালিটিকুরি সবুজ সংঘ।

আরও পড়ুনঃ দেখে নিন কীভাবে অংশগ্রহণ করবেন 'এশিয়ানেট নিউজ শারদ সম্মান ২০১৯'-এ 

এবছর এই ক্লাবের মন্ডপ সৃজনে থাকবেন সান্তনু ভট্টাচার্য ও আমির মুখার্জ্জী। এবং প্রতিমা নির্মাণে থাকছেন শিল্পী রাজীব পাল। 

গতবছর থিমের জোয়ারে গা না ভাসালেও, সাবেকিয়ানায় নিজেদের প্রতিমা সাজিয়েছিলেন এই ক্লাব। অসাধারন সাবেকি সাজে বেনারসি পরে সেজে উঠেছিলেন তাদের প্রতিমা। যা দর্শনার্থীদের মনে জায়গা করে নিয়েছিল। তাই তাদের এবছরের প্যান্ডেলে ঠিক কতটা দর্শকদের ঢল নামবে তা দেখার জন্য আর মাত্র কিছুদিনের অপেক্ষা।