লোকসভা ভোটের ফল বেরোনর পর থেকে রাজ্যজুড়ে রাজনৈতিক হিংসার ঘটনা ঘটছে পরপর। এবার প্রধানমন্ত্রীর শপথ গ্রহণের দিনই রাজ্যের কেতুগ্রামে  খুন হলেন এক বিজেপি কর্মী। খুনের অভিযোগ তৃণমূলের দিকে। 

কেতুগ্রামের পাণ্ডুগ্রামের বিজেপি কর্মী সুশীল মণ্ডলকে দুষ্কৃতীরা বুকে ছুরি মেরে খুন করে। পরিবারের অভিযোগ রাজনৈতিক হিংসার জেরেই তৃণমূলের হাতে খুন হয়েছেন সুশীল। এছাড়া বিজেপির বিজয় মিছিলে তিনি জয় শ্রীরাম ধ্বনি দিয়েছিলেন। খুন হওয়ার পিছনে এটিও একটি কারণ বলে মন করছে তাঁর পরিবার। যদিও তৃণমূল এই অভিযোগ স্বীকার করেনি। তাদের দাবি পারিবারিক কোনও কারণে এই ঘটনা ঘটেছে। 

এই খুনের ঘটনায় এলাকারই তৃণমূল কর্মী লক্ষ্মণ মণ্ডল, রাজকুমার ঘোষ ও জগন্নাথ ঘোষের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছে মৃতের পরিবার। এই তৃণমূল কর্মীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে সুশীল মণ্ডলের পরিবার। 

জানা গিয়েছে, এলাকায় বিজেপির সক্রিয় নেতা হিসেবে পরিচিত ছিলেন সুশীল মণ্ডল। প্রায়ই তাঁর বাড়িতে বিজেপির মিটিং হতো। কিন্তু ভোটের আগে একবার তৃণমূলের পতাকা ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছিল মৃতের বিরুদ্ধে। 

সুশীল মণ্ডলের পরিবার জানিয়েছে, নিজের বাড়ির কাছেই বিজেপির পতাকা লাগাচ্ছিলেন তিনি। তখনই অভিযুক্তরা এসে তাঁর বুকে ছুরি মেরে পালায়। আহত অবস্থায় সঙ্গে সঙ্গে কেতুগ্রাম স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয় সুশীল মণ্ডলকে। চিকিৎসকরা সেখানে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।