বিদ্যালয়েই গলায় দড়ি দিয়ে আত্মঘাতী এক কর্মী। ঘটনাটি ঘটেছে  বিষ্ণুপুর থানা এলাকায়। বিদ্যালয় স্থায়ীকরণ হয়নি সেই নিয়ে মানসিক অবসাদের দীর্ঘদিন ধরে ভুগছিলেন ৪৫ বছর বয়সী প্রশান্ত প্রামাণিক। এমনটাই দাবি পরিবারের লোকজনদের। স্থানীয় মানুষজন বিষ্ণুপুর থানায় খবর দিলে  পুলিশ গিয়ে উদ্ধার করে। তবে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েও শেষ রক্ষে হয়নি। 

 

 

 প্রশান্ত বাবু দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে অভয়চরণ বিদ্যাপীঠ তিনি অস্থায়ী কেরানি রূপে বা কর্মী রূপে কাজ করে আসছেন। আশ্বাস পেয়েছেন কিন্তু কোনদিনও সফল হয়নি। সেই কারণে দীর্ঘ লকডাউন চলে গিয়েছে। গায়ের উপর দিয়ে দেনাও বাড়িয়ে ফেলে ছিলেন, এমনটাও জানাচ্ছে পরিবারের লোকজন। সেই জন্য মানসিক অবসাদগ্রস্ত হয়ে অভয়চরণ বিদ্যালয় মধ্যে অর্থাৎ যে বিদ্যালয় প্রশান্তবাবু কর্মরতো ছিলেন সেই বিদ্যালয়ের মধ্যে গলায় দড়ি লাগিয়ে আত্মঘাতী হন। স্থানীয় মানুষজন স্থানীয় থানায় খবর দিলে বিষ্ণুপুর থানার পুলিশ গিয়ে উদ্ধার করে। আমতলা গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।


 পাশাপাশি তার দেহ পূর্ণাঙ্গ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে বিষ্ণুপুর থানার পুলিশ এবং ময়নাতদন্তের পর পরিবারের লোকজনের হাতে এমনটাই জানা যাচ্ছে পুলিশ সূত্রে আরও জানা যাচ্ছে যে এখন অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করেছে তদন্তকারী অফিসারেরা।