উত্তম দত্ত, হুগলি: পাঁচিল টপকে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করছিল দুষ্কৃতীরা। বাধা দেওয়ায় এবার কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে রক্তাক্ত হলেন এক যুবক। তাকে ভর্তি করা হয়েছে হাসপাতালে। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে হুগলির তারকেশ্বরে।

জানা গিয়েছে, ভিনরাজ্য থেকে আগত পরিযায়ী শ্রমিকদের থাকার জন্য পুরসভা লাগোয়া তারেশ্বর উচ্চ বিদ্যালয়ে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার খুলেছে প্রশাসন। এলাকায় ফিরে সেই কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থাকছিলেন অজয় অধিকারী নামে এক যুবক। তারকেশ্বর পুর এলাকার ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা তিনি। অভিযোগ, গত কয়েক দিন ধরেই কয়েক দুষ্কৃতী রাতের অন্ধকারে পাঁচিল টপকে কোয়ারেন্টাইন সেন্টার ঢোকার চেষ্টা করছে।

সোমবার রাতে যখন তিনজন দুষ্কৃতী স্কুলের পাঁচিল টপকানোর চেষ্টা করছিল, তখন আওয়াজ পেয়ে বাধা দিতে যান অজয়। এরপর দুষ্কৃতীরা মুখ লক্ষ্য করে ছুরি চালিয়ে চম্পট দেয় বলে অভিযোগ। সময়মতো মুখটা সরিয়ে নিয়েছিলেন, তবে হাতে আঘাত পেয়েছেন আক্রান্ত যুবক। তাঁকে উদ্ধার করে ভর্তি করা হয় তারকেশ্বর হাসপাতালে।  ঘটনায় আতঙ্কিত পরিযায়ী শ্রমিকরা। কোয়ারেন্টাইন সেন্টারের নিরাপত্তার দাবি তুলেছেন তাঁরা। তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, কয়েক মাসে আগে পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুরে একটি কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে নিখোঁজ হয়ে যান এক পরিযায়ী শ্রমিক। কয়েক ঘণ্টার বাথরুমের পাশ থেকে রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে উদ্ধার করা হয়। পরিবারের লোকেদের অভিযোগ, কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ওই পরিযায়ী শ্রমিককে খুনের চেষ্টা করা হয়েছে। আর এবার কোয়ারেন্টাইনের সেন্টার দুষ্কৃতীদের হামলার মুখে পড়লেন ভিন রাজ্য থেকে ফেরা শ্রমিক।