বাড়ি ফাঁকা পেয়ে এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠলো স্থানীয় এক যুবকের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়া থানার হপ্তিয়াগছ গ্রামে। অত্যাচারিত ছাত্রীকে চিকিৎসার জন্য উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে স্থানান্তর করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে পলাতক অভিযুক্ত ওই যুবক। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে চোপড়া থানার পুলিশ। 

আরও পড়ুন, পার্শ্বশিক্ষকদের আন্দোলনে সরব দিলীপ, যোধপুর পার্কে তোপ BJP-র রাজ্য সভাপতির 

পরিবারসূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তর দিনাজপুর জেলার চোপড়া থানার হপ্তিয়াগছ গ্রামের বাসিন্দা মঞ্জুর আলম গতকাল স্বাস্থ্য সাথীর কার্ড করেতে গিয়েছিলেন। বাড়িতে একাই ছিল মঞ্জুর আলমের মেয়ে। বাড়ি ফাঁকা পেয়ে মহম্মদ সারফারাজ মঞ্জুর আলমের মেয়েকে ধর্ষণ করে খুনের চেষ্টা করে বলে অভিযোগ। মঞ্জুর আলম বাড়িতে এসে তার মেয়ে পরে রয়েছে৷ তড়িঘড়ি তার মেয়েকে প্রথমে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যায়। মেয়েটির অবস্থা অংশকাজনক থাকায় চিকিৎসার জন্য উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে স্থানান্তর করা হয়েছে। এই ঘটনায় চোপড়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে ওই যুবকের বিরুদ্ধে। 

আরও পড়ুন, ডোনার নামে ভুয়ো অ্যাকাউন্টে ফলোয়ার্স ছাড়াল ৭৮ হাজার, লালবাজারে অভিযোগ দায়ের 

অপরদিকেঘটনার পর থেকে পলাতক অভিযুক্ত ওই যুবক। ইসলামপুর পুলিশ জেলার পুলিশ সুপার শচীন মক্কার জানিয়েছেন, কিশোরীর বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। এখনও অবধি এই ঘটনায় কেউ গ্রেপ্তার হয়নি। এদিকে সামনেই ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচন। একদিকে যখন কেন্দ্রের আয়ুশমানকে টেক্কা দিতে বাংলায় রাজ করছে স্বাস্থ্যসাথী। আর তখনই ভোটের মুখে আরও একবার বেআব্রু হয়ে পড়ল রাজ্য়ের নারী নিরাপত্তা।