রাত-বিরেতে পাড়ায় তুমুল অশান্তি। দুই ভাইয়ের বচসায় রক্তারক্তি কাণ্ড হওয়ার উপক্রম। ঝগড়া থামাতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে বেঘোরে প্রাণ গেল গৃহবধূর। ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে নদিয়ার ধুবুলিয়ায়। ঘটনার পর অভিযুক্তদের বাড়িতে ভাঙচুর চালান স্থানীয় বাসিন্দারা। অভিযুক্তেরা পলাতক। তাদের বাড়ির লোককে আটক করেছে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: বৌদিকে কুপিয়ে খুন, ধরা পড়ে গণধোলাই খেলো দেওর

নদিয়ার ধুবুলিয়ার কোয়ার্টার এলাকায় থাকে স্বদেশ বিশ্বাস ও রাজু বিশ্বাস। সম্পর্কে তারা দুই ভাই। এলাকায় অবশ্য দু'জনই দুষ্কৃতী হিসেবে পরিচিত। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, স্বদেশ ও রাজু পেশায় সুদের ব্যবসায়ী। এলাকায় জুয়ার কারবারও চালায় তারা। বাড়িতে রীতিমতো অস্ত্র মজুত থাকে।  রবিবার রাতে টাকার ভাগ-বাঁটোয়ারা নিয়ে বচসায় জড়িয়ে পড়ে স্বদেশ ও রাজু। বচসা এমনই জায়গায় পৌঁছায় যে, স্বদেশকে ধারালো অস্ত্র নিয়ে মারতে যায় রাজু। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি,  স্থানীয় বাসিন্দা গোবিন্দ সরকার ও তাঁর স্ত্রী রুমা যখন দুই ভাইয়ের ঝগড়া থামাতে যান, তখন ওই গৃহবধূকে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়ে দেয় স্বদেশ। মাথায় গুলি লাগে রুমার। রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যান স্থানীয় বাসিন্দারা। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। স্বাস্থ্যকেন্দ্রে রুমা সরকারকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। 

আরও পড়ুন: বইয়ের পাশাপাশি মার্শাল আর্ট, বিনামূল্য়ে সুশিক্ষা দিচ্ছেন বর্ধমানের অনিমা দেবী

এদিকে এই ঘটনার পর তুমুল উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে ধুবুলিয়ার কোয়ার্টার এলাকায়। অভিযুক্তদের বাড়িতে চড়াও হন স্থানীয় বাসিন্দারা। চলে ব্যাপক ভাঙচুর। ততক্ষণে অবশ্য স্বদেশ ও রাজু চম্পট দিয়েছে।  অভিযুক্তদের বাড়ির লোককে আটক করেছে পুলিশ। মৃতার বছর দেড়েক এক সন্তান আছে বলে জানা গিয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, স্বদেশ ও রাজু দীর্ঘদিন ধরেই এলাকার নানা অসামাজিক কাজকর্ম করে যাচ্ছে। কিন্তু সব জেনেও পুলিশ কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার কারণে বেঘোরে মরতে হল রুমা সরকারকে।