মিঠু সাহা, শিলিগুড়ি: কলকাতায় কলসেন্টার চালু করেছে পুরসভা। এবার শিলিগুড়িতেও করোনাজয়ীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করল দার্জিলিং জেলা প্রশাসন। যাঁদের বয়স তিরিশের নিচে, তাঁরা চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে সেফ হাউস, এমনকী কোভিড হাসপাতালেও কাজের সুযোগ পাবেন। দেওয়া হবে মাসিক বেতনও। একথা জানিয়েছেন খোদ দার্জিলিং-এর জেলাশাসক পুন্নমবালম এস।

আরও পড়ুন: করোনার ভয়ে ধরতে এলো না কেউ, অ্যাম্বুল্য়ান্সে তুলতে গিয়ে পড়ে মৃত্যু রোগীর

উত্তর থেকে দক্ষিণ, আক্রান্তের সংখ্য়া লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে রাজ্যের সর্বত্রই। বহু ক্ষেত্রে আবার আক্রান্তদের তেমন কোনও উপসর্গও দেখা যাচ্ছে না। শিলিগুড়ি শহরের পরিস্থিতিও তথৈবচ। ১৬ জুলাই প্রথমে শহরে লকডাউন জারি করা হয়। পরবর্তীতে লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানো হয় আরও  সাতদিন। আপাতত ২৯ জুলাই পর্যন্ত শিলিগুড়ি শহর থাকবে পুরোদস্তুর লকডাউনের আওতায়। কিন্তু ঘটনা হল, আক্রান্তের সংখ্যা যেমন বাড়ছে, তেমনি চিকিৎসা সেরেও উঠছেন সিংহভাগই রোগীই।

আরও পড়ুন: তৃণমূলে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জন্য় শুভাশিস চক্রবর্তীকে 'দায়ী' করলেন শওকত মোল্লা

রাজ্য সরকারের নির্দেশ মেনে এবার শিলিগুড়ি শহরেও কোভিড ওয়ারিয়র ক্লাব তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দার্জিলিং জেলা প্রশাসন। করোনা জয়ীর বয়স যদি তিরিশের কম হয়, তাহলেই এই ক্লাবের সদস্য হতে পারবেন। সচেতনতামূলক প্রচারই শুধু নয়, হোম আইসোলেশনে থাকা রোগীদের খাবার  ও ওষুধ পৌঁছে দেওয়ার কাজও করবেন কোভিড ওয়ারিয়ক ক্লাবের সদস্য। মাসিক বেতন পনেরো হাজার টাকা। এদিকে আবার শিলিগুড়ি শহরের ৪৭টি ওয়ার্ডেও তৈরি করা হয়েছে ওয়ার্ড কোভিড ক্লাব। দার্জিলিং-এর জেলাশাসক পুন্নমবালম এস জানিয়েছেন, যাঁরা কোভিড ওয়ারিয়র ক্লাবে কাজ করতে আগ্রহী, তাঁদের নামের একটি তালিকা তৈরি করা হবে। করোমা মৃদু উপসর্গ থাকলে রোগীকে বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।