সঞ্জীব দুবে, পূর্ব মেদিনীপুর: লকডাউনের মাঝেই ধেয়ে আসছে ঘুর্ণিঝড় 'আমফান'। ঝড়ের গতিমুখ এ রাজ্যের উপকূলের দিকে। আপতকালীন পরিস্থিতিতে প্রশাসনের তৎপরতা তুঙ্গে দিঘায়।

আরও পড়ুন: সোমবার সন্ধ্যে রুদ্র মূর্তি ধারণ করবে 'আমফান', দিঘার কাছেই ঘূর্ণি ঝড়ের অবস্থান জানিয়েছে প্রশাসন

লকডাউনের বাজারে সমুদ্র সৈকতে পর্যটকের ভিড় নেই। করোনা সংকটের মাঝে নয়া বিপদের হাতছানি পূর্ব মেদিনীপুরের সৈকতশহর দিঘায়। যত সময় যাচ্ছে, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে শক্তি বাড়াচ্ছে ঘুর্ণিঝড় আমফান। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, দিঘা থেকে ৯৮০ কিমি দূরে অবস্থান করছেন ঘুর্ণিঝড়টি। ওড়িশার পারাদ্বীপ থেকে দূরত্ব ৮২০ কিমি। শেষবেলায়  গতিপথে যদি সামান্য পরিবর্তন হয়, সেক্ষেত্রেও এ রাজ্য ও বাংলাদেশের উপকূলবর্তী এলাকা রক্ষা পাবে না। তেমনই পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। বুলবুল ও ফণীর স্মৃতি ফিরবে না তো? আতঙ্কের প্রহর গুনছেন দিঘার উপকূলবর্তী এলাকার বাসিন্দারা।

ঘুর্ণিঝড়ের সতর্কতায় সোমবার সকাল থেকে সমুদ্র তীরবর্তী এলাকায় মাইকিং করতে শুরু করেছেন বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের কর্মীরা। পূর্ব মেদিনীপুরের জেলাশাসক পার্থ ঘোষ জানিয়েছেন, সমুদ্রে এই মুহুর্তে কোনও মৎস্যজীবী নেই। মহকুমাশাসক, থানাগুলিকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পর্যাপ্ত ত্রাণসামগ্রী ও প্রয়োজনে যাতে সাধারণ মানুষকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে আনা যায়, সে ব্যবস্থা করে রেখেছে জেলা প্রশাসন।

 

 

আরও পড়ুন: ক্রমেই শক্তি বাড়িয়ে ধেয়ে আসছে আমফান, ঘূর্ণিঝড়ের সময় ও আগে মেনে চলুন সতর্কবার্তা

স্রেফ দিঘাতেই নয়, ঘুর্ণিঝড়ের সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায়। ঝড়ের তাণ্ডব চলতে পারে দুই চব্বিশ পরগণা, হাওড়া ও হুগলিতেও। নবান্নের কন্ট্রোল রুম থেকে পরিস্থিতি উপর কড়া নজরদারি চালানো হচ্ছে। দিল্লিতে বিশেষ বৈঠক ডেকেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও।