কষ্টার্জিত উপার্জনের টাকা ভরসা করে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কে রেখেছিলেন স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্য মহিলারা। কিন্তু তাঁদের অজান্তেই অ্যাকাউন্ট থেকে গড়ে তিন থেকে চার হাজার টাকা করে কেটে নেওয়ার অভিযোগ উঠল। তাও একজন- দু' জনের নয়, অসংখ্য গ্রাহকের টাকা এভাবেই কেটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ব্যাঙ্কের বিরুদ্ধে।

ঘটনাটি ঘটেছে রামপুরহাট ১ নম্বর ব্লকের কুসুম্বা অঞ্চলের একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কে। কুসুম্বা অঞ্চলে মোট ৬১টি স্বনির্ভর গোষ্ঠী রয়েছে। তাঁদের সদস্য সব মহিলাই ওই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের শাখায় অ্যাকাউন্ট খুলেছিলেন। অভিযোগ, গ্রাহকদের অজান্তেই ওই সমস্ত অ্যাকাউন্ট থেকে সম্প্রতি তিন থেকে চার হাজার টাকা করে কেটে নেওয়া হয়েছে। পাশবই আপ টু ডেট করতে গিয়ে টাকা কাটার বিষয়টি নজরে আসে স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্যদের। প্রতিবাদে শুক্রবার দুপুরে ব্যাঙ্কে বিক্ষোভ দেখান মহিলারা। তাঁদের দাবি, কেটে নেওয়া টাকা ফেরত দিতে হবে। 

শ্যামচাঁদ স্বনির্ভর গোষ্ঠীর সদস্য সান্ত্বনা মণ্ডল বলেন,'ব্যাঙ্কে টাকা কাটার বিষয়ে জানতে গেলে ম্যানেজার জানান, জীবন বিমার জন্য টাকা কাটা হয়েছে। কিন্তু জীবন বিমা করা হলে তো কাগজ হাতে পাব। তাছাড়া আমরা তো জীবন বিমা করিনি। আমরা
সামান্য সঞ্চয় করছি। সেই টাকা কেটে নিলে আমাদের কীভাবে টাকা জমাব?'

বিক্ষোভরত মহিলারা হুমকি দেন, সাত দিনের মধ্যে টাকা না ফেরালে তাঁরা সমস্ত অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দেবেন। ওই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কটির শাখার ম্যানেজার রজনীকান্ত বলেন, 'অভিযোগ পেয়েছি। কোনও টাকা ভুল করে কাটা হয়ে থাকলে সেই টাকা ফেরত দেওয়া হবে।'