তৃণমূল বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল পুরুলিয়া শহর। তৃণমূলের পুরুলিয়া শহর সভাপতি বিভাস রঞ্জন দাসকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগ বিজেপির বিরুদ্ধে। অভিযোগের তীর বিজেপি বিধায়ক সুদীপ মুখোপাধ্যায়ের ভাইয়ের দিকে। ওই বিধায়কের অভিযুক্ত ভাইকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

যদিও সব অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি। জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে তৃণমূল নেতা বিভাস রঞ্জন দাসকে রাস্তায় একা পেয়ে হামলা চালায় বিজেপি বিধায়ক সুদীপ মুখোপাধ্যায় ঘনিষ্ঠ বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী। ঘটনার খবর পেয়ে সাংবাদিক ঘটনাস্থলে পৌঁছে খবর সংগ্রহ করতে গেলে, তার ওপরেও হামলা চালানো হয়। ঘটনায় রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হন বিভাস রঞ্জন দাস । হাসপাতালে ভর্তি হন আহত সাংবাদিকও।

এরপরই পুরুলিয়া সদর থানার বাইরে পৌঁছায় বিজেপি কর্মী সমর্থকেরা। থানার বাইরে ভিড় জমান বহু তৃণমূল কর্মীও। লাঠি নিয়ে হাজির থানার সামনে জড়ো হন তারা। পুলিশের সামনেই দুপক্ষের মধ্যে বচসা বাঁধে। পরিস্থিতি সামাল দিতে পৌঁছায় ব়্যাফ। গভীর রাত পর্যন্ত উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পুরুলিয়া শহর। পরিস্থিতি সামাল দিতে হিমশিম খেতে হয় পুরুলিয়া সদর থানার পুলিশকে। 

পুরুলিয়া সদর থানার বাইরে  দু'পক্ষের হুমকি পাল্টা হুমকিতে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা এলাকা। ঘটনায় আহত হন বিজেপি পুরুলিয়ার দক্ষিণ মন্ডল সভাপতি সত্যজিৎ অধিকারী সহ তিনজন। তাদের পুরুলিয়া দেবেন মাহাতো সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনার জেরে উত্তেজনা রয়েছে পুরুলিয়া শহরে।