বুদ্ধদেব পাত্র, পুরুলিয়া- ২০১৮-র পঞ্চায়েত নির্বাচনের পর থেকে ধস নেমেছিল তৃণমূলের। ২০১৯-এর লোকসভা ভোটেও তৃণমূলকে জোর ধাক্কা দিতে পুরুলিয়ায় জনসভা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। নিজেদের মাটি শক্ত করতে জেলা জুড়ে জোরদার প্রচার করেছিল তৃণমূলও। এই অবস্থায় তৃণমূল প্রার্থী মৃগাঙ্ক মাহাতোকে হারিয়ে প্রায় ২ লক্ষেরও বেশি ভোটে জয়ী হয়েছিলেন বিজেপির জোর্তিময় সিং মাহাতো।

লোকসভা ভোটের পর তৃণমূলের পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্য়ায়কে। তাঁর জায়গায় পর্যবেক্ষকের দায়িত্বে আসেন শ্রমমন্ত্রী মলয় ঘটক। কয়েক মাস পর পুরুলিয়ার অতিরিক্ত পর্যবেক্ষক হিসেবে যোগ দেন শুভেন্দু অধিকারী। একুশের বিধানসভা নির্বাচনকে পাখির চোখ করে পুরুলিয়ার ভোট মানচিত্রের জন্য় আলাদা রূপরেখা তৈরি করতে শুরু করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। জেলার রাজনৈতিক মানচিত্রে এখন ভৌটকৌশুলী প্রশান্ত কিশোরের স্ট্র্য়াটেজি মেনে কাজ চলছে। 

পুরুলিয়া জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র নবেন্দু মাহালি জানান, ''বিজেপি লোকসভা ভোটে পুরুলিয়া যে পরিমান ভোট পেয়েছিল, সেই জায়গায় আর থাকবে না। করোনা আবহে মানুষ দেখছে কে তাঁদের পাশে রয়েছে। সেই জায়গায় আমরা অনেক এগিয়ে। মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়ের অনুপ্রেরণায় বহু মানুষ এখন তৃণমূলে ফিরে এসেছেন। এখন আমরা অনেকটাই ঘুরে দাঁড়িয়েছি। যাঁরা আমাদের ভুলে চলে গিয়েছিল তাঁরা আবার ঘরে ফিরছে। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে পুরুলিয়ায় ভাল ফল করবে তৃণমূল।''

আরও পড়ুন-নদীবাঁধ ভেঙে গ্রামে ঢুকেছে নোনা জল, জলমগ্ন ঘরবাড়ি, নতুন করে আতঙ্ক সুন্দরবনে

অন্যদিকে, বিজেপির জেলা সভাপতি, বিদ্যাসগর চক্রবর্তী বলেন, '' ২০১৮-র পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপি ৩৯ শতাংশ ভোট পেয়েছিল। ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে ভোট বেড়ে দাঁড়া ৪৯ শতাংশে। এখন পুরুলিয়ায় বিজেপির ভোট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫১ শতাংশের কাছাকাছি।''

আরও পড়ুন-রূপনারায়ণ নদীতে সন্দেহজনক ট্রলার ঘিরে রহস্য, বাজেয়াপ্ত বেআইনি জিনিসপত্র

করোনা আবহের মধ্য়েই কার্যত যোগদানের প্রতিযোগিতা চলছে পুরুলিয়ায়। গুরুপদ টুডু তৃণমূলের জেলা সভাপতি হওয়ার পর থেকেই বিজেপি থেকে তৃণমূল যোগদান করছেন অনেকে। সম্প্রতি, বিজেপি থেকে তৃণমূল যোগ করেছেন বহু মানুষ। অন্যদিকে, তৃণমূল থেকে বিজেপিতেও যোগদান কর্মসূচি অব্য়াহত রয়েছে। রাজনৈতিক মহলের মত, করোনা পরিস্থিতিতে যোগদানের প্রতিযোগিতা চললেও পুরুলিয়ার সুখা মাটিতে নিজেদের শিকড় শক্ত করেছে পদ্ম শিবির। পাশাপাশি, পুরুলিয়ার সাংসদ জ্যোর্তিময় সিং মাহাতো বলেন, ''একুশে বদলাও নেব, বদলও করব''