এ যেন চোরের উপর বাটপারি। বিক্ষোভ দেখিয়ে তৃণমূল নেতার থেকে কাটমানি আদায় করেছিলেন। সেই টাকাই আত্মসাতের অভিযোগ উঠল বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে। এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগে বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে পোস্টার পড়ল পশ্চিম মেদিনীপুরের নারায়ণগড়ে। 

অভিযোগ, নারায়ণগড় ব্লকের খালিনা গ্রামের তৃণমূল নেতা সুশান্ত ধলের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও আর্থিক তছরুপের অভিযোগ তুলে দু' সপ্তাহ আগে গ্রামের একদল বিজেপি নেতা কর্মী মোটা টাকা উদ্ধার করেন। সরকারি বাড়ি তৈরির প্রকল্পের উপভোক্তাদের কাছ থেকে তৃণমূল নেতা ওই টাকা নিয়েছিলেন বলে অভিযোগ। টাকা উদ্ধারের কথা স্বীকারও করেছেন বিজেপি নেতারা। 

বিজেপি-র স্থানীয় মণ্ডল সভাপতি শুভাশিস মহাপাত্র, বিজেপি নেতা গৌরাঙ্গ সাউ- সহ বেশ কয়েকজন নেতা ওই টাকা উদ্ধার করেছিলেন। কিন্তু অভিযোগ, টাকা উদ্ধারের পরে বেশ কিছুদিন কেটে গেলেও, গ্রামবাসীদের হাতে সেই টাকা তুলে দেনন বিজেপি নেতারা। ফলে, বিজেপি নেতাদের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগে সরব হন তৃণমূল নেতারা। 

কাটমানি হিসেবে উদ্ধার করা ওই টাকা বিজেপি নেতারা আত্মসাৎ করেছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন তৃণমূল নেতারা। বিজেপি নেতাদের নামে এই অভিযোগে গ্রাামের মধ্যে পোস্টারও পড়েছে। তৃণমূলের ব্লক সভাপতি মিহির চন্দের অভিযোগ, তৃণমূলের নেতাকর্মীদের কাছ থেকে জোর করে টাকা তুলছেন বিজেপি নেতা কর্মীরা। তাই স্থানীয় বাসিন্দারাই ওই টাকা ফেরত চাইছেন। 

তৃণমূল নেতার থেকে আদায় করা টাকা নিজেদের কাছে রাখার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন বিজেপির নারায়ণগড় মধ্য মণ্ডল সভাপতি শুভাশিস মহাপাত্র। তাঁর অবশ্য দাবি, 'ওই টাকা গ্রামবাসীরা আদায় করে আমাদের কাছে রেখেছেন। কেউ আত্মসাৎ করেনি। ওই টাকা কোন কাজে লাগানো হবে, তা এখনও সিদ্ধান্ত হয়নি বলেই আমাদের কাছে রাখা রয়েছে।' শুভাশিসবাবুর অবশ্য দাবি, তিন লক্ষ নয়, তাঁদের কাছে এক লক্ষ পয়তাল্লিশ হাজার টাকা রয়েছে।