কৌশিক সেন, রায়গঞ্জ: বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে খুন? এলাকা থেকে উদ্ধার হল বিজেপি কর্মীর দেহ। প্রশ্নের মুখে পুলিশের ভূমিকাও। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে উত্তর দিনাজপুরের ইটাহারে। 

আরও পড়ুন: পুলিশ বিজেপি কর্মীকে বাড়ি থেকে তুলে গুলি করে খুন করেছে, ইটহার নিয়ে সরব দিলীপ ঘোষ

মৃতের নাম অনুপ রায়। বাড়ি, ইটাহারের নন্দনগ্রাম এলাকায়। তিনি বিজেপি সক্রিয় কর্মী ছিলেন। অন্তত তেমনই দাবি করা হয়েছে দলের তরফে। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, বুধবার দুপুরে পুরনো একটি ডাকাতির মামলায় অনুপকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ। এরপর রাত সাড়ে ন'টা নাগাদ এলাকা থেকে তাঁর দেহ উদ্ধার হয়। ছেলের মৃত্যুসংবাদ পেয়ে রায়গঞ্জে বিজেপি কার্যালয়ের যান নিহতের মা। দলের উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ি বলেন, দিন কয়েক আগে দলে যোগ দিয়েছিলেন অনুপ। তাঁকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় পুলিশ এবং বেধড়ক মারধর করা হয়। তারপর তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা গুলি করে খুন করে। 

আরও পড়ুন: আত্মহত্যায় তৃতীয় স্থানে বাংলা, ১৮-৩০ বছরের সংখ্য়া বেশি, কী কারণ বলছে রিপোর্ট

ঘটনার পর বৃহস্পতিবার রাতেই দেহটি আনা হয় রায়গঞ্জে মেডিক্যাল কলেজে ও হাসপাতালে। তড়িঘড়ি মৃতদেহের ময়নাতদন্ত সেরে ফেলতে পুলিশ তৎপর হয় বলে অভিযোগ। নিয়মমাফিক সকালে ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে ফের ময়নাতদন্তের দাবি তুলেছে বিজেপি। রায়গঞ্জ পুলিশ জেলার সুপার সুমিত কুমার অবশ্য জানিয়েছেন, 'আমার একজন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছিলাম। গ্রেফতার হওয়ার পর অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। পরে মারা যান।'