ভরদুপুরে একটি নির্মীয়মাণ বাড়িতে বিস্ফোরণ। বিস্ফোরণে গুরুতর জখম তিন পড়ুয়া। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার বারুইপুরে। আহতেরা ভর্তি হাসপাতালে। তাদের শারীরিক অবস্থা গুরুতর বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু কীভাবে বিস্ফোরণ ঘটল? তা এখনও পরিষ্কার। ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের সাহায্য নিচ্ছে পুলিশ।

বারুইপুরের নাজিরপুর এলাকায় একটি বহুতল তৈরি হচ্ছে। সোমবার দুপুরে আচমকাই সেই নির্মীয়মাণ বহুতলে  বিস্ফোরণ ঘটে। বিস্ফোরণের বিকট শব্দে কেঁপে ওঠে গোটা এলাকা। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছে, যখন বিস্ফোরণ ঘটে, তখন ওই নির্মীয়মাণ বাড়িটিতে ছিল তিনজন পড়ুয়া। তারা সকলেই  বারুইপুর মদারাট আটঘরা কালিকৃষ্ণ বিদ্যাপীঠের নবম শ্রেণির ছাত্র। বিস্ফোরণে তিনজনই গুরুতর আহত হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় একটি হাসপাতালে। তবে শারীরিক অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তিনজনকে কলকাতায় পাঠিয়ে দিয়েছেন। এদিকে খবর বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে যান এসডিপিও  অভিষেক মজুমদার, বারুইপুর থানার আইসি দেবকুমার। এলাকাটি ঘুরে দেখেন তাঁরা, সংগ্রহ করে নমুনা। 

আরও পড়ুন: নিরাপত্তারক্ষীকে আটকে রেখে লুঠপাট, মেডিকেল কলেজে চাঞ্চল্য

কিন্তু কীভাবে বিস্ফোরণ ঘটল? তা কিন্তু এখনও স্পষ্ট নয়। বারুইপুরের এসডিপিও অভিষেক মজুমদার জানিয়েছেন, 'বিস্ফোরণের কারণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে। বম্ব স্কোয়াড ও ফরেনসিক টিমকে খবর দেওয়া হয়েছে।' আগামীকাল অর্থাৎ মঙ্গলবার ঘটনাস্থলে ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা আসবেন বলে জানা দিয়েছে। তবে কারণ যাই হোক না কেন, ভরদুপুরে বিস্ফোরণের ঘটনায় আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা।  উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে মুর্শিদাবাদের বেলডাঙায় কার্তিক পুজোর মেলায় বিস্ফোরণ ঘটেছিল।  ঘটনাস্থলেই মারা যান এক ব্যক্তি, গুরুতর জখম হন মহিলা, শিশু-সহ পঁচিশ জন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, মেলায় গ্যাস বেলুন বিক্রি করছিলেন একজন। তাঁর অসাবধানতায় গ্যাসের সিলিন্ডারে বিস্ফোরণ ঘটে।