করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের সঙ্গেও বাস ও ট্রেন যোগাযোগ স্থগিত রাখল ভারত৷ কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বাস ও ট্রেন পরিষেবা বন্ধ রাখা হচ্ছে৷  এর আগে নোটিশ জারি হয়েছিল,১৩ মার্চ থেকে উত্তর ২৪ পরগনার পেট্রাপোল সীমান্তের স্থলপথ দিয়ে কোনও যাত্রীকে যাতায়াত করতে দেওয়া হবে না৷

আরও পড়ুন, কলকাতা সহ রাজ্য়ে প্রবল ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা, তাপমাত্রা স্বাভাবিকের উপরে

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য়, ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া এই মুহূতে ৮০ ছাড়িয়েছে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন দুই ভারতীয়। অপরদিকে বাংলাদেশে তিনজনের দেহে করোনা ভাইরাস পাওয়া গিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রিয় সরকার করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের সঙ্গেও বাস ও ট্রেন যোগাযোগ স্থগিত রেখেছে।সূত্রের খবর, বৈধ পাসপোর্ট নিয়ে যারা ভারতে এসেছেন,তারা অবশ্য বাংলাদেশে ফিরে যেতে পারবেন৷ ১৩ মার্চ বিকেলের পর থেকে সাধারণ যাত্রীদের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে পেট্রাপোল সীমান্তের স্থল বন্দর। ১৩ মার্চ থেকে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে দেশের সবচেয়ে বড় এই স্থল বন্দর৷ 

আরও পড়ুন, সারদায় ক্ষতিগ্রস্তদের টাকা কীভাবে ফেরাবে, রাজ্য়ের কাছে রিপোর্ট তলব হাইকোর্টের

অপরদিকে বাংলাদেশ গত বৃহস্পতিবার থেকেই ভারতের সঙ্গে সড়ক, নৌ এবং রেল পরিষেবা বন্ধ করে দিয়েছে৷ তবে জানা গিয়েছে,  বাংলাদেশে যে তিনজনের দেহে করোনাভাইরাস জীবাণু মিলেছিল, তাদের মধ্যে দুজন সুস্থ। শুক্রবার পর্যন্ত মোট ৯৬৩ জনকে ভাইরাস সংক্রামিত রোগী সন্দেহে পৃথক করে রাখা হয়েছে। সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই বাংলাদেশের ২০ জেলায় ৯৬৩ জনকে এই ব্যবস্থায় পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। তবে তাদের মধ্যে কেউ এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত নন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

আরও পড়ুন, বৈশাখী-মমতা সাক্ষাৎকে গুরুত্ব নয়, শোভন নিয়ে চুপ দিলীপ