ব্যবধান একদিনের। বৃষ্টিকে উপেক্ষা করে মঙ্গলবার ফের শিলিগুড়িতে করোনা পরিস্থিতি পরিদর্শন করলেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। শহরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখেন দলের তিনজন। দলের প্রধান-সহ বাকি দু'জন চলে যান দার্জিলিং-এ।

আরও পড়ুন: 'বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা করুন', মোদির রাজ্য থেকে আত্মহত্যার হুমকি বাংলার শ্রমিকদের

করোনা সংক্রমণ নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে প্রশাসনের। এ রাজ্যে লকডাউন ঠিকমতো মানা হচ্ছে তো? পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে সপ্তাহ খানেক আগে কলকাতা পৌঁছন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। একাধিক দলের ভাগ হয়ে উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে দেখছেন তাঁরা। মঙ্গলবার সকালে দ্বিতীয় দফায় ফের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্য়রা ঘুরে দেখলেন শিলিগুড়ি শহরের বিভিন্ন এলাকায়। 

আরও পড়ুন: এবার করোনা কেড়ে নিল রাজ্যের আরও এক চিকিৎসককে, লড়াই শেষ স্বনামধন্য অস্থিরোগ বিশেষজ্ঞের

আরও পড়ুন: করোনার ভ্যাকসিনের সঙ্গে এবার বাংলার যোগ, অক্সফোর্ডের গবেষক দলের সদস্য কলকাতার মেয়ে

এদিন সকালে শিলিগুড়ি ডিসান হাসপাতালে যান কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের তিন সদস্যরা। খতিয়ে দেখেন হাসপাতালের পরিস্থিতি। পরবর্তী গন্তব্য ছিল, শহরের ৪৭ নম্বর ওয়ার্ড। সংক্রমণ ঠেকাতে সেখানকার কয়েকটি এলাকায় আবার ব্যারিকেড বসিয়েছে প্রশাসন। কিন্তু সেই ব্যারিকেড মানছেন না অনেকেই। ঘটনাটি নজরে আসতে উষ্মা প্রকাশ করেন কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলে সদস্য। যদিও এ বিষয়ে প্রকাশ্যে কিছু বলতে চাননি তাঁরা। বরং কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের তরফে অজয় গাঙ্গোয়ার জানান, পরিস্থিতি এখন অনেকটা ভালো। সোয়াব টেস্টের রিপোর্ট যথেষ্ট তাড়াতাড়ি চলে আসছে।  স্রেফ শিলিগুড়ি শহরই নয়, কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা যান বাগডোগরা কমলপুর চা বাগানেও।  কথা বলেন চা বাগানের শ্রমিকদের। তাঁরা স্বাস্থ্য বিধি মানছেন কিনা, তাও খতিয়ে দেখেন।