দীর্ঘ দিন ধরেই জল্পনা চলছিল। রবিবার জল্পনার শেষ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন জানিয়ে একটি চিঠি লিখে জানিয়ে দিয়েছেন রাজ্যের সকল মানুষকেই বিনামূল্যে দেওয়া হবে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন। তিনি মহামারির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য আরও একবার কোভিড যোদ্ধাদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। কোভিড যোদ্ধাদের পরিবারের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। 

চিঠিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন,  দেশে কোভিড ভ্যাক্সিন আসতে চলছে। আর সেই কারণে তিনি জানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের রাজ্যের সমস্ত বাসিন্দাদের কাছে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করছে। বাংলার পুলিশ, হোমগার্ড, অসামরিক প্রতিরক্ষা স্বেচ্ছাসেবক, সোংশোধনার ও বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের কর্মীদের কাছে এই ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়া হবে। অগ্রাধিকার ভিত্তিতেই ভ্যাকসিন পৌঁছে দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। একই সঙ্গে রাজ্যের সকল মানুষের সুস্থতাও কামনা করেছেন তিনি। 

কেন্দ্রীয় সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী আগামী ১৬ জানুয়ারি থেকে করোনাভাইরাসের টিকা প্রদান শুরু হবে দেশজুড়ে। অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে প্রথম টিকা পাবেন স্বাস্থ্য কর্মী ও স্বাস্থ্য পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত সকল ব্যক্তি। প্রথম টিকা প্রদান করা হবে কোভিডের ফ্রন্টলাইন যোদ্ধাদের ও ৫০ উর্ধ্ব নাগরিক ও দীর্ঘদিন ধরে রোগে ভোগা ব্যক্তিদের। করোনাভাইরাসের টিকা নিয়ে আগামিকাল অর্থাৎ সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী কথা বললেন দেশের সবকটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে। বিহার বিধানসভা নির্বাচনের সময় বিজেপির ইস্তাহারে বিনামূল্যে করোনা টিকা প্রদান করা হবে বলে ঘোষণা করা হয়েছিল। যা নিয়ে কিছুটা হলেও বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। এদিকে  বাংলাতেও বিধানসভা ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণা হওয়ার আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছে রাজ্যের সকল মানুষকেই বিনামূল্যে টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে তার সরকারের।  রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের অনুমান বিধানসভা ভোটের আগে মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণা মা মাটির মানুষের শাসক তৃণমূল সরকারকে কিছুটা হলেও অ্যাডভানটেজ দেবে ভোট বাক্সে।