পিকনিকের পর বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে এক সিপিএম নেতাকে গুলি করে খুন করেছে তাঁর বন্ধুরাই। নিহতের পরিবারের অভিযোগ তেমনই।  ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে নদিয়ার নাকাশিপাড়ায়।

মৃতের নাম টিংকু শেখ। বাড়ি, নাকাশিপাড়ার মুন্ডমালা গ্রামে। এলাকার সিপিএম নেতা হিসেবে পরিচিত ছিলেন তিনি। বস্তুত, গত পঞ্চায়েত ভোটে প্রার্থীও হয়েছিলেন টিংকু শেখ। পরিবারের লোকেরা জানিয়েছেন, বুধবার রাতে মুন্ডমালা গ্রামে কবাডি খেলার আসর বসেছিল। খেলার শেষে বন্ধুদের নিয়ে পিকনিকের আয়োজন করেছিলেন টিংকু। খাওয়া-দাওয়া সেরে রাত সাড়ে ন'টা নাগাদ বাড়িতে ফিরেছিলেন তিনি। পরিবারের লোকেদের দাবি, বাড়ি ফেরার পথ ফের ফোন করে টিংকুকে কবাডি খেলার মাঠে আসতে বলেন তাঁর কয়েকজন বন্ধু। ফোন পেয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যান ওই সিপিএম। কিন্তু টিংকু যখন কবাডি খেলার মাঠে পৌঁছন, তখন খুব কাছে তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালানো হয় বলে অভিযোগ।  পাঁজরে গুলি লেগেছে টিংকুর। রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে কৃষ্ণনগর জেলা হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয় বাসিন্দারা। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। সিপিএম নেতা টিংকু শেখকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা।  কিন্তু কী কারণে খুন হয়ে গেলেন টিংকু শেখ?  তা এখনও স্পষ্ট নয়। 

জানা গিয়েছে, স্যাকরার কাজ করতেন নিহত টিংকু শেখ। সম্প্রতি কেবলের ব্যবসাও শুরু করেছিলেন তিনি। খুনের নেপথ্যে ব্যবসায়িক শক্রতা নাকি রাজনৈতিক আক্রোশ?  তা খতিয়ে দেখছে নাকাশিপাড়ার থানার পুলিশ।  এদিকে অবিলম্বের দোষীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দেওয়ার দাবি করেছেন মৃতের পরিবারর লোকেরা।  আতঙ্কিত স্থানীয় বাসিন্দারা।