পরাগ মজুমদার, মুর্শিদাবাদ: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে আপত্তিকর পোস্ট করে কয়েকদিন আগেই গ্রেফতার হতে হয়েছিল হাওড়ার এক মহিলা বিজেপি কর্মীকে। এবার মুখ্যমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর নামে একসঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় কুরুচিকর পোস্ট করে বিপাকে মুর্শিদাবাদের ভগবানগোলার এক সিপিএম কর্মী। পুলিশে অভিযোগও দায়ের হয়েছে। যার জেরে আপাতত এলাকা ছেড়েই পালিয়েছেন অভিযুক্ত পিয়ারুল ইসলাম। 

পুলিশ এবং স্থানীয় সূত্রে খবর, কয়েকদিন আগেই পিয়ারুল ইসলাম নামে ওই সিপিএম কর্মী নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে মুখ্যমন্ত্রী এবং প্রধানমন্ত্রীর নামে বেশ কিছু অশালীন ছবি পোস্ট করে। যা স্থানীয় তৃণমূল এবং বিজেপি নেতাদের চোখে পড়ে। সাধারণ মানুষের মধ্যেও ক্ষোভ ছড়ায়। অভিযুক্ত ওই সিপিএম কর্মীর বিরুদ্ধে ভগবানগোলা থানায় একাধিক অভিযোগ জমা পড়ে। তৃণমূলের স্থানীয় যুব সভাপতি সেলিম শেখ ভুট্টোও আলাদা করে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেলন। যার জেরে তদন্তে নামে পুলিশ। তার পরেই বিপদ বুঝে গা ঢাকা দিয়েছে ওই সিপিএম কর্মী। 

ঘটনা নিয়ে তৃণমুল নেতা সগির হোসেন বলেন, “যেভাবে সাধারণ মানুষের সসামনে জননেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চরিত্র হনন করতে সিপিএমের ওই কর্মী এই কাজ করেছে, তাতে শুধু দ্রুত গ্রেফতারি নয়, দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি আমরা।"

পিয়ারুলের নিজের দল সিপিএমও এই ঘটনায় দলীয় কর্মীর পাশে দাঁড়ায়নি। সিপিএমের স্থানীয় শাখা সম্পাদক গোলাম সারোয়ার কচি বলেন, “আমরা নিজেরাও হতবাক এই ঘটনায়। কীভাবে আমাদের দলের একজন কর্মী এমন কদর্য ঘটনা ঘটাল, আমরা তা ভেবে পাচ্ছি না। ওই কর্মীর বিরুদ্ধে দলীয় স্তরে চূড়ান্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

লালবাগ মহকুমা পুলিশ সুপার বরুণ বৈদ্য বলেন , “মারাত্মক এই অভিযোগ পাওয়ার পরই পুলিশ  ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। কীভাবে এবং কী উদ্দেশ্যে ওই  ছবি স্যোশাল মিডিয়াতে ছড়ানো হল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে, সাইবার বিশেষজ্ঞদেরও সাহায্য নেওয়া হচ্ছে।"