উত্তর ২৪ পরগনার টিটাগড়ে বিজেপি নেতা মনীশ শুক্লা খুনের ঘটনায় রাজনৈতিক চক্রান্ত রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আজ সন্ধ্যায় তিনি এবং জাতীয় যুব মোর্চার সভাপতি তেজস্বী সূর্য খড়দহের আদর্শপল্লীতে নিহত মনীশ শুক্লার বাড়িতে গিয়ে তার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। 

পরে দীলিপবাবু সাংবাদিকদের জানান, সিবিআই তদন্তের জন্য তাঁরা চেষ্টা চালাচ্ছেন। এই খুনের ঘটনার পিছনে শাসক দলের নেতারা যেমন জড়িত রয়েছেন তেমনি প্রশাসনের লোকেরাও যুক্ত রয়েছেন বলে তাঁর অভিযোগ। পুলিশ প্রকৃত খুনিকে আড়াল করতে  বিভিন্ন লোককে ধরে নিয়ে এসে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন। 

এদিকে বৃহস্পতিবারই ব্যারাকপুরের বিজেপি নেতা মণীশ শুক্ল খুনে সিবিআই তদন্ত চেয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে কলকাতা হাইকোর্টে। এদিন মামলা দায়ের করেন হাইকোর্টের আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা তিব্রেয়াল। তাঁর অভিযোগ, মনীশ শুক্ল শুধুমাত্র একজন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, সমাজকর্মী নয়,  আইনজীবী হিসেবেও পরিচিত ছিলেন।  

মনীশের খুনে এ রাজ্যের পুলিশের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ উঠেছে। ফলে রাজ্যের গোয়েন্দা সংস্থা হিসেবে সিআইডি এই ঘটনার তদন্ত করলে স্বচ্ছতা থাকবে না৷ নিরপেক্ষ তদন্তের স্বার্থে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে দিয়ে তদন্ত করানো দরকার৷ প্রধান বিচারপতি টিবিএন রাধাকৃষ্ণনের ডিভিশন বেঞ্চে  আগামী সোমবার মামলার শুনানির সম্ভাবনা রয়েছে। 

গত রবিবার টিড়াগড়ে শার্প শ্যুটারের ছোঁড়া গুলিতে ঝাঁঝরা হয়ে যায় বিজেপি নেতা মণীশ শুক্লর শরীর৷ এই ঘটনায় জেলা পুলিশের হাত থেকে সিআইডি'কে তদন্তভার দেয় রাজ্য সরকার। রাজ্য গোয়েন্দা সংস্থা তদন্তভার হাতে নিয়ে ইতিমধ্যেই ৪ জনকে  গ্রেফতার করেছে৷ ধৃতদের জেরা করে সিআইডি একটি আগ্নেয়াস্ত্র ও তিনটি বাইক উদ্ধার করেছে।