যেখানেই বিক্ষোভ চলছে সেখানেই গুলি চলবে। এ ভাবেই উত্তরপ্রদেশে নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভে পুলিশের গুলি চালানোকে সমর্থন জানালেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর এও দাবি, ভারতবর্ষের আরও অনেক জায়গাতেই এবার উত্তরপ্রদেশ, অসমের মতো গুলি চালানো হবে।

নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভ দেখাতে গিয়ে কত কয়েকদিনে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে দশ থেকে এগারো জনের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর। শুক্রবারই মৃত্যু হয় ছ' জনের। এই ঘটনার পর পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে তৃণমূলের চার সদস্যের প্রতিনিধি দল উত্তরপ্রদেশ যাচ্ছে। তৃণমূলের এই পদক্ষেপকে কটাক্ষ করতে গিয়ে এ দিন গুলি চালানো পক্ষেই সওয়াল করেন দিলীপবাবু।

আরও পড়ুন- আলিপুরদুয়ারে আরএসএস-এর মিছিলে ধুন্ধুমার, সাংসদকে বাধা পুলিশের, দেখুন ভিডিও

আরও পড়ুন- নাগরিকত্ব আইন কী, মুসলিম কিশোরদের বুঝিয়ে মন জিতলেন পুলিশ অফিসার

নাগরিকত্ব  আইনের সমর্থনে শনিবার বাঁকুড়া শহরে আসেন  বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। লালবাজার থেকে তামলিবাঁধ পর্যন্ত মিছিল করা হয়। মিছিল শেষে তামলিবাঁধ বাসস্ট্যান্ডে একটি সভায় বক্তব্য রাখেন দিলীপবাবু। সেখানেই তিনি বলেন, 'যোগীজি বলে দিয়েছেন যে রাস্তায় বেরোবে গুলি খাবে। কাউকে ছাড়া হবে না, কেসও হবে, গুলিও চলবে। অসমেও আমরা গুলি চালিয়েছি। দেশের সম্পত্তি নষ্ট করলে তাকে ছাড়া হবে না, গুলি হোক লাঠি হোক খেতেই হবে।  সারা ভারতবর্ষে যেখানে আগুন জ্বলছে, সেখানে বন্দুকের আগুন জ্বলবে। কত জায়গায় দিদি লোক পাঠাবেন। কতদিন এই তাঁবেদারি চলবে, কতদিন এই বিদেশি উগ্রপন্থীদের দালালি হবে। এটা বন্ধ করার সময় চলে এসেছে। তাই বাংলায় এবার লোকসভায় বিজেপি সতেরো শতাংশ থেকে বেড়ে চল্লিশ শতাংশ ভোট পেয়েছে।'

এ দিন দিলীপবাবু দাবি করেন, অন্তত এক কোটি মুসলিম অনুপ্রবেশকারী গোটা রাজ্যে ছড়িয়ে রয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ষাট থেকে সত্তর লক্ষ ভোটারও রয়েছে। ওই ভোটারদের দেওয়া ভোটেই তৃণমূল এতদিন জিতে আসছে বলে কটাক্ষ করেন দিলীপ। তাঁর দাবি নাগরিকত্ব আইন প্রণয়ন হলে এই এক কোটি অনুপ্রবেশকারী ভোটাধিকার হারাবে বলে দাবি দিলীপের। ভোটব্যাঙ্ক- এ ধস নামলে তৃণমূল আগামী বিধানসভা নির্বাচনে পঞ্চাশটি আসনও পাবে না বলে দাবি করেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। তাঁর দাবি অন্তত দুশোটি আসনে জিতে বাংলায় ক্ষমতায় আসবে বিজেপি।