Asianet News Bangla

প্রয়োজনে ছুটতে হবে না পুরসভায়, এবার দুয়ারেই আসছে কেএমসি

  • চালু হতে চলেছে দুয়ারে কেএমসি প্রকল্প
  • শীঘ্রই চালু হবে এই কর্মসূচি
  • মিউটেশনের কাজ এই কর্মসূচির মাধ্যমে হবে
  • বড় আবাসনগুলিতে পুরকর্মীরা গিয়ে কাজ করবেন
duare kmc is a new scheme of govt announced by Firhad Hakim bmm
Author
Kolkata, First Published Jul 9, 2021, 8:06 AM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

দুয়ারে সরকারের আদলে এবার চালু হতে চলেছে দুয়ারে কেএমসি প্রকল্প। কলকাতা পুরসভার উদ্যোগে শীঘ্রই চালু হবে এই কর্মসূচি। কবে থেকে এই প্রকল্প শুরু পুরসভার তরফে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে প্রকাশ করা হবে। অ্যাসেসমেন্ট ও মিউটেশনের কাজ এই কর্মসূচির মাধ্যমে হবে বলে বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন পুরসভার বোর্ড অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্সের চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম। 

আরও পড়ুন- ক্রেনটা গাড়ির সামনে এসে পিষে দেওয়ার চেষ্টা করে, বিস্ফোরক অভিযোগ বিজেপি নেতার

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে রাজ্যে জারি রয়েছে বিধিনিষেধ। যদিও বেশ কিছু ক্ষেত্রে ছাড়ি ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিকে রাজ্যে করোনা সংক্রমণের গতিও এখন নিম্নমুখী। কিন্তু, করোনা পরিস্থিতি কেটে গেলেও বাকি রয়েছে মিউটেশনের কাজ। আর সেই কাজ করার জন্য এখন পুরসভায় আসার প্রয়োজন নেই শহরবাসীকে। দুয়ারে কেএমসি প্রকল্পের মাধ্যমেই এই কাজ সম্ভব হবে।  

আরও পড়ুন- জন্মদিনে বেহালার বাড়িতে সৌরভ-মমতা সাক্ষাৎ, একে-অপরকে দিলেন উপহার
 
জানা গিয়েছে, দুয়ারে সরকারের মতোই ওয়ার্ড ভিত্তিক শিবির করে এই কর্মসূচি চলবে। বড় আবাসনগুলিতে পুরকর্মীরা গিয়ে কাজ করবেন। এর ফলে আর বিভিন্ন কাজের জন্য শহরবাসীকে পুরসভায় যাওয়ার প্রয়োজন পড়বে না। এই প্রকল্পের মাধ্যমে কলকাতা পুরসভা একটি টিম গঠন করে মানুষের গিয়ে মিউটেশনের সুবিধা দেবে। বাড়ির কাছে থাকা শিবিরে গিয়েই পরিষেবা নিতে পারবেন তাঁরা। পরিষেবার কাজে আরও গতি আনার জন্য এই সিদ্ধান্ত। করোনা পরিস্থিতির জেরে জমি-বাড়ি মিউটেশনের বহু কাজ বাকি। সেগুলি শেষ হলে পুরসভার কোষাগারে অর্থ আসবে। তাই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 

আরও পড়ুন- "যিনি বাংলাকে ভাগ করতে চান, তাঁকে মন্ত্রী করে পুরস্কৃত করা হল", বারলা প্রসঙ্গে মহুয়া

এদিকে ভুয়ো টিকাকাণ্ডে এই মুহূর্তে উত্তাল রাজ্য রাজনীতি। মূল অভিযুক্ত দেবাঞ্জন দেবের সঙ্গে পুরসভার কর্মীদের যোগ ছিল বলে অভিযোগ তুলেছে বিজেপি। বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী বলেছেন, পুরসভার প্রশাসক থেকে তৃণমূল বিধায়ক, আইপিএস-আইএএসরা যুক্ত রয়েছেন ভুয়ো টিকাকাণ্ডে। তার জবাবে ফিরহাদ বলেন, "এখন তো ভুয়ো সিবিআই বের হচ্ছে। আমাদের কাজ মানুষকে পরিষেবা দেওয়া। পুরসভা গোয়েন্দা এজেন্সি নয়। পুরসভার নামে কেউ প্রতারণা করলে আমাদের পক্ষে তা ধরা সম্ভব নয়।" 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios