বাজ পড়ে বিধ্বংসী আগুন। আর তাতেই পুড়ে ছাই হয়ে গেল রাজারহাটের বৈদিক ভিলেজের একাংশ। সোমবার রাত দশটা নাগাদ আগুন লাগলেও মঙ্গলবার সকালেও কিছু জায়গায় ধিকি ধিকি জ্বলেছে আগুন। দমকলের দশ থেকে বারোটি ইঞ্জিন গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যা দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু।

সোমবার রাতেই কলকাতা-সহ লাগোয়া জেলাগুলিতে বজ্রপাত-সহ বৃষ্টি শুরু হয়। রাত দশটা নাগাদ আচমকাই বাজ পড়ে আগুন ধরে যায় বৈদিক ভিলেজের একটি কটেজে। দমকল মন্ত্রী জানান, ওই ইকো- রিসর্টের অধিকাংশ কটেজগুলিতেই খড়ের ছাউনি দেওয়া ছিল। তার সঙ্গে ছিল প্লাইউড, কাঠের  মতো দাহ্য পদার্থ।. তার সঙ্গে প্রবল হাওয়া থাকায় দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে আগুন। ফলে, রিসর্টে থাকা অতিথিদের মধ্যে প্রবল আতঙ্কের সৃষ্টি হয়।

 

 

খবর পেয়ে প্রথমে দমকলের দু'টি ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে যায়। কিন্তু আগুন ভয়াবহ আকার ধারণ করায় আরও ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়। বেশ কয়েকঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও দু'টি ব্যাঙ্কয়েট হল সহ বেশ কিছু কটেজ সম্পূর্ণ ভষ্মীভূত হয়ে যায়। তবে এই ঘটনায় ওই ইকো- রিসর্টে থাকা কোনও অতিথি বা কর্মীর হতাহতের খবর নেই বলেই জানিয়েছেন দমকল মন্ত্রী।

 অভিযোগ, আগুন নিয়ন্ত্রণের কাজ করতে গেলে এক দমকলকর্মীকে মারধর করে বৈদিক ভিলেজের কর্মীরা। শুধু তাই নয়, নামী ইকো- রিসর্টের অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। সব অভিযোগই খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন দমকল মন্ত্রী। আপাতত আগামী রবিবার পর্যন্ত ওই ইকো রিসর্টে কোনও অতিথিকে রাখা হবে না বলে জানিয়েছে রিসর্ট কর্তৃপক্ষ।