করোনা আক্রান্ত হওয়ায় বেসরকারি সংস্থার অস্থায়ী কাজ হারিয়েছিলেন যুবক। তারপর থেকে স্ত্রী, সন্তান নিয়ে অভাবের সংসারে বাড়ছিল অশান্তি। শনিবার অশান্তি এতটাই চরমে উঠল যে স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে খুন করল যুবক। পরে থানায় গিয়ে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করে।

আরও পড়ুন-জঙ্গলমহল সফরে মুখ্যমন্ত্রী, প্রশাসনিক বৈঠক ঘিরে খড়গপুরে তোড়জোড়

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে পুরুলিয়ার ৫ নম্বর ওয়ার্ডে হুচুকপাড়ায়। জানাগেছে, প্রবীর গাঙ্গুলী নামে ওই ব্যক্তি বেসরকারি সংস্থায় বাউন্সারের কাজ করতেন। মাস দুয়েক আগে তিনি আক্রান্ত হন। তারপর থেকে ওই সংস্থা থেকে কাজ হারান প্রবীর। কাজ হারিয়ে কর্মহীন হয়ে বাড়িতেই থাকতেন। অভাবের সংসারে বেশ কয়েকদিন ধরেই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে অশান্তি চলছিল। শনিবার তাঁর চার বছরের সন্তানকে মারধর করেন মা রুমা গাঙ্গুলি। তা নিয়ে স্ত্রীর সঙ্গে ঝামেলা চরম আকার ধারন করে। বচসার জেরে স্ত্রীকে গলা টিপে ধরে সে। এরপরই নিজেই স্ত্রীকে পুরুলিয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।  চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। স্ত্রীকে খুনের দায়ে নিজেই পুলিশের দ্বারস্থ হয় অভিযুক্ত স্বামী প্রবীর।

আরও পড়ুন-হাওড়ায় প্রোমোটারকে গুলি করে খুন, সিসিটিভিতে ধরা পড়ল দুষ্কৃতীদের ছবি

ঘটনার তদন্তে নেমে অভিযুক্ত প্রবীর গাঙ্গুলি সহ তাঁর মাকেও গ্রেফতার করে পুলিশ। রবিবার ধৃতদের পুরুলিয়া জেলা আদালতে তোলা হলে বিচারক অভিযুক্ত স্বামীকে তিনদিনের পুলিশ হেফাজত ও তার মাকে ১৪ দিনের জেলা হেফাজতের নির্দেশ দেয়।